অবশেষে ইউক্রেনে অত্যাধুনিক ট্যাংক পাঠাচ্ছে আমেরিকা-জার্মানি
আন্তর্জাতিক
অবশেষে ইউক্রেনে অত্যাধুনিক ট্যাংক পাঠাচ্ছে আমেরিকা-জার্মানি
অবশেষে আমেরিকা এবং জার্মানি অত্যাধুনিক ট্যাংক পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউক্রেনে। এসব ট্যাংক ইউক্রেনের হাতে আসলে যুদ্ধের মোড় ঘুরে যেতে পারে বলে তারা আশা করছে।

ছবি: সংগৃহীত
ছবি: সংগৃহীত
মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন ৩০টি এম ওয়ান আব্রামস ট্যাঙ্ক পাঠানোর পরিকল্পনা ঘোষণা করবে বলে আশা করা হচ্ছে। জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শোলৎজ ১৪টি লেপার্ড টু ট্যাঙ্ক পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গেছে। আমেরিকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত এসব খবরকে সরাসরি উস্কানি হিসেবে বর্ণনা করেছেন। ইউক্রেনের কর্মকর্তারা বলছেন, এসব ট্যাংক যুদ্ধক্ষেত্রে রাশিয়ার কাছে হারানো এলাকা পুনরুদ্ধার করতে সহায়তা করবে। ইউক্রেনে ট্যাংক পাঠনোর জন্য আমেরিকা এবং জার্মানি এতোদিন ধরে দেশের ভেতরে এবং বাইরে নানা চাপ উপেক্ষা করেছে। ওয়াশিংটন বলছে, অত্যাধুনিক প্রযুক্তির আব্রামস ট্যাংক পরিচালনার জন্য ব্যাপক প্রশিক্ষণ এবংরক্ষণাবেক্ষণ প্রয়োজন। অন্যদিকে বার্লিন আশংকা করছে ট্যাংক সরবরাহের মাধ্যমে ন্যাটো রাশিয়ার বিপক্ষে সরাসরি যুদ্ধে জড়িয়ে যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম বলছে , জার্মানির পক্ষ থেকে আমেরিকাকে অনানুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়েছিল যে আমেরিকা যদি এম ওয়ান আব্রামস ট্যাংক ইউক্রেনে পাঠায় তাহলে জার্মানিও লেপার্ড টু ট্যাংক পাঠাবে। বিবিসির প্রতিরক্ষা বিষয়ক করেসপনডেন্ট জনাথন বিয়েল বলেন, ইউক্রেন মনে করে ৩০০ আধুনিক ট্যাংক পেলে তারা যুদ্ধে জিততে পারবে। তাদের প্রয়োজন মতো ট্যাংক পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। জার্মান প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বরিস পিস্টোরিয়াস এর আগে বলেছিলেন, বার্লিন অন্যান্য দেশগুলিকে ইউক্রেনীয়দের লেপার্ড টু ট্যাঙ্ক ব্যবহার করার প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য সবুজ সংকেত দিয়েছে, কিন্তু তাদের নিজস্ব ট্যাংক পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দেয়নি। জার্মানি ট্যাঙ্ক পাঠাতে রাজি হওয়ার প্রতিবেদন প্রকাশের পর তিনি টেলিগ্রামে লিখেছেন, ট্যাঙ্ক হলো ইউক্রেনের ১৯৯১ সালের সীমানায় ফিরে আসার অন্যতম হাতিয়ার।
আন্তর্জাতিকইউক্রেন
আরো পড়ুন