Link copied.
‘স্ট্রীট ফুড’ বা রাস্তার খাবার: কীভাবে শুরু হলো বৈচিত্র্যময় এই খাবার ব্যবস্থাটির প্রচলন?
writer
অনুসরণকারী
cover
ভ্রমণ এবং খাবার পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুব কম ই পাওয়া যাবে। বিভিন্ন শহর ঘুরে দেখার জন্য বের হলেই আপনার চোখে পড়বে চারপাশে থাকা অফুরন্ত স্ট্রিট ফুডের বাহার। ধনি-গরিব সব দেশেই বেশ প্রচলিত এ খাবার ব্যবস্থা। সকল বয়সের মানুষকেই পাওয়া যাবে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে খাবার উপভোগ করতে। আমাদের দেশে প্রায় প্রতিদিন ই বিকেল বেলা দেখা যায় যে রাস্তার পাশে খাবারের দোকানগুলোতে বন্ধুরা জড়ো হয়ে আড্ডা দিচ্ছে। এটি যেন দেশের ঐতিহ্যের একটি অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা এটি দেখে একেবারে অভ্যস্ত হলেও, স্ট্রিট ফুডের ইতিহাসটি আসলে কিছুটা বৈচিত্র্যময়। আমরা প্রায়শই রাস্তার খাবার খাই তবে এর উৎস সম্পর্কে কখনও চিন্তা করা হয় না। এজন্য চলুন যেনে নেয়া যাক এর ইতিহাস। 
‘স্ট্রীট ফুড’ কী?

সাধারণত স্ট্রিট ফুড হ'ল রাস্তায় এবং পরিষ্কার পাবলিক জায়গাগুলিতে তৈরি খাবারের একটি ফর্ম । এটি রেস্তোঁরা এবং ফাস্ট ফুডের চেয়ে সস্তা । এটি কোনও খাদ্য ট্রাক বা কার্ট ব্যাবহার করে বিক্রি হতে পারে, কিওস্ক থেকে হতে পারে -এমনকি টেবিল-চেয়ার ব্যবহার করেও হতে পারে। স্ট্রিট ফুডে থাকে বিভিন্ন রকম খাবার। এর মধ্যে শক্ত খাবার আইটেম বা বিভিন্ন প্রকার পানীয় অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে। স্ট্রিট ফুড আজকাল একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসা হয়ে উঠেছে। আপনি রাস্তা পেরিয়ে হাঁটলেই দেখবেন অনেক বিক্রেতা খাবার আইটেম বিক্রি করছেন। এগুলি সুস্বাদু, ট্র্যাডিশনাল,; এগুলির থাকে অনন্য সুবাস যা প্রতিটি পথিককে একটু থেমে খাবারগুলি টেস্ট করতে বাধ্য করে। এগুলি সহজেই কয়েক মিনিটের মধ্যে তৈরি করা হয়।  
cover
এফএওর (খাদ্য ও কৃষি সংস্থা) ২০১২ সালের প্রতিবেদন অনুসারে দেখা যায়,, এখন প্রায় আড়াই মিলিয়ন মানুষ প্রতিদিন রাস্তার খাবার খায়। বলা চলে, ‘স্ট্রিট ফুড’ গ্রাহকদের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে।  
কিভাবে হয়েছিল এর শুরু?

প্রতিটি সংস্কৃতি এবং অঞ্চলের একটি ইতিহাস রয়েছে যা রাস্তার খাবারের জন্য মানুষের ভালবাসা দেখায়। স্ট্রিট ফুডের একটি দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে যার জন্য যেতে হবে বহু সভ্যতা পিছনে। রাস্তায় প্রস্তুত করা খাবারের সর্বাধিক প্রাচীন প্রমাণগুলি প্রায় দশ হাজার বছর আগের সভ্যতার। প্রাচীন গ্রীকরা আলেকজান্দ্রিয়া বন্দরে ঐতিহ্যবাহী মিশরীয় রীতিনীতি বর্ণনা করেছিল এবং পরবর্তীকালে গ্রিস জুড়ে গৃহীত হয়েছিল রাস্তায় ভাজা মাছ বিক্রি করা। গ্রীস থেকে, এই রীতিটি রোমান বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। এজন্য এটি বিশ্বাস করা হয় যে স্ট্রিট ফুডের প্রথম বিতরণ কেন্দ্র ছিল প্রাচীন গ্রিস।

 সাধারণত এগুলি ছিল এক ধরণের মিনি রান্নাঘর যেখানে সমস্ত ধরণের রান্না করা খাবার, বিশেষত স্ট্রো বা মটরশুঁটি বিক্রি করা হত। সেই সময় কম ধনী নগরের বাসিন্দারা অ্যাপার্টমেন্টগুলিতে বাস করতেন, মূলত ফ্ল্যাটের ব্লক এ, যার বেশিরভাগ ছিল রান্নাঘর ছাড়া। তাই জনসাধারণ রাস্তায় খেত এবং নিকটস্থ থার্মোপোলিয়াম থেকে তাদের খাবার কিনত।     
cover
রাস্তার খাবারের মান ১৫ শতকের প্রথম অংশ পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণ করা হত না। তুরস্ক হল প্রথম দেশ যা স্ট্রিট ফুডকে বৈধ করে এবং এর মান প্রতিষ্ঠা করে । তুরস্ক এবং অন্যান্য পূর্ব দেশগুলির সর্বাধিক জনপ্রিয় রাস্তার খাবারগুলি ছিল ভাত, ভেড়ার কাবাব, ভাজা মুরগী ইত্যাদি । মাংস ছিল তাদের রান্নায় শীর্ষস্থান অধিকারী। 
অতীতে বিভিন্ন দেশে ‘স্ট্রীট ফুড’ এর ধরণ 

প্রাচীন চীনে, রাস্তার খাবারগুলি সাধারণত দরিদ্রদেরকে সরবরাহ করার জন্য তৈরি করা হত। তখন ধনী বাসিন্দারা রাস্তায় খাবার কিনতে দাসদের পাঠাতেন। প্যারিসে "প্যাটস" বা "পাস্টস" ছিল, যেখানে প্যাস্ট্রিগুলিকে বিভিন্ন ফিলিংয়ের সাথে যুক্ত করে, সাধারণত স্টিউড মাংস বা শাকসবজি, কয়েক পেনিতে বিক্রি করা হত ছেলে এবং শ্রমিকদের জন্য যাতে তারা কাজ করার সময় খেতে পারত। আমেরিকার উপনিবেশিক সময়ে বিক্রেতারা ‘রোস্ট ঝিনুক এবং কর্ন’ বিক্রি করতেন। ১৯১০ সাল পর্যন্ত সস্তা দাম এবং সুস্বাদু স্বাদের কারণে ঝিনুকগুলি জনপ্রিয় স্ট্রিট ডিশ হিসাবে পরিচিত ছিল। স্থানীয় লোকেরা তাদের ঐতিহ্যবাহী খাবারগুলিকেই স্ট্রীট ফুড হিসেবে খেতেন। ।  
cover
নিউ ইয়র্কের কিছুটা আলাদা ইতিহাস ছিল। সরকার বিক্রেতাদের উপর অনেকগুলি বিধিনিষেধ আরোপ করেছিল এবং ১৮ শতকের প্রথম অংশে নিউইয়র্কে স্ট্রিট ফুড নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। দেশের অন্যান্য অঞ্চলে লোকেরা ঝিনুক, ফল, বাদাম, বিস্কুট, কেক ইত্যাদি কিনতে পারত। তাছাড়া বিক্রেতারা কফি এবং বিভিন্ন ধরণের মিষ্টিও সরবরাহ করত।  
cover
আফ্রিকাতে, অনেক মহিলা এবং শিশুরা রাস্তার খাবার বিক্রি করে আয় উপার্জন করতেন। ট্রান্সিলভেনিয়ায় উনিশ শতকের সময় বিক্রেতারা রাস্তায় ‘আটা রুটি’ এবং ‘ক্রিমের সাথে মিশ্রিত কর্ন’ বিক্রি করতেন। ১৮৪০ সালের মধ্যে প্যারিসে সর্বাধিক বিক্রিত রাস্তার খাবার হিসাবে আবির্ভূত হয়েছিল 'ফরাসি ফ্রাই' (ফ্রেঞ্চ ফ্রাই)। প্রথমদিকে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই এক ধরণের ফ্রেঞ্চ স্ট্রিট ফুড ছিল। খুব শীঘ্রই, এই খাবারটি বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠে। তৎকালীন ব্রিটিশ খাবারগুলি মূলত মটর দিয়ে গঠিত ছিল।

cover
থাইল্যান্ডে, প্রাথমিকভাবে এই ব্যবসা খুব বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেনি। জাপানে, ১০০ বছর আগে স্ট্রিট ফুড ব্যবসা শুরু হয়েছিল যেখানে শিক্ষার্থী এবং শ্রমিকদের খাবার সরবরাহ করা হত। বিখ্যাত জাতীয় জাপানি রামন ছিল চীনের একটি সাধারণ স্ট্রিট ফুড। স্ট্রীট ফুড ধীরে ধীরে আরও সমৃদ্ধ হয় এবং বিভিন্ন পরিবর্তনে রূপান্তরিত হয়।   
বর্তমান অবস্থা

বিশ্বজুড়ে স্ট্রিট ফুড এখন, যাকে ফাস্ট ফুডের সমার্থক ও বলা যায় যা দৈনন্দিন জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হয়ে উঠেছে। স্থানীয় জনসংখ্যা ক্রমবর্ধমানভাবে তাদের ব্যস্ত জীবনযাত্রার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে সংগ্রাম করে চলেছে। রাস্তার বিক্রেতারা হটফ্রেশ, লিপ স্ম্যাকিং স্ন্যাক্স অফার করে যা সাশ্রয়ী । টেক আউট খাবার, জাঙ্ক ফুড, স্ন্যাকস এবং ফাস্টফুড সব ই স্ট্রিট ফুডের সমার্থক। এই খাবারগুলি জনপ্রিয় কারণ এটি সহজেই পাওয়া যায় এবং এটি দামের দিক দিয়ে কোনও রেস্তোঁরাযুক্ত খাবারের চেয়ে বেশি এফরডেবল ।

বর্তমানে, কিছু কিছু রাস্তার খাবার আঞ্চলিক হলেও অনেক খাবার তাদের মূল অঞ্চল ছাড়িয়ে গেছে। নিজের দেশের আঞ্চলিক খাবারের পাশাপাশি পাওয়া যায় বিভিন্ন দেশের ফেমাস খাবারগুলি। বিশ্বায়ন আজকাল স্ট্রিট ফুডকে মারাত্মকভাবে প্রভাবিত করেছে। সাংস্কৃতিক আদান-প্রদানের কারণে বিশ্বের প্রতিটি বড় শহরে সব ধরণের স্ট্রিট খাবার পাওয়া সম্ভব।  
cover
স্ট্রিট ফুড যারা খান না তারা অনেকেই এটিকে অস্বাস্থ্যকর বলেন এবং দূরে থাকেন। তবে, একটি বিষয় লক্ষ্য করে অবাক হবেন যে, স্ট্রিট ফুড বিক্রেতাদের দূষণ সম্পর্কে উদ্বেগ সত্ত্বেও, একাধিক গবেষণায় এই দূষণের প্রমাণ পাওয়া যায় না। 
সারা বিশ্বে শীর্ষ ১০টি স্ট্রিট ফুডস 

  • বনি চৌ: দক্ষিণ আফ্রিকার ধনী আরামদায়ক খাবার
  • আন্টিকুচোস: পেরুর মাংস-প্রেমীদের জন্য
  • ফালাফেল: ইস্রায়েলে স্বাস্থ্যকর ট্রিট
  • বুউরেক: পূর্ব ইউরোপের ক্রিস্পি ডেলিকেসি
  • মরিচ ক্র্যাব: সিঙ্গাপুরের রাস্তাগুলি থেকে দুর্দান্ত ডাইনিং 
  • হ্যালো হ্যালো: ফিলিপাইনে লুসিয়াস ডেসার্ট
cover
cover
  •  স্নাগ: অস্ট্রেলিয়ায় গিল্টি প্লেজার
  • বেগুনি: বাংলাদেশের ভেজি ডিলাইট
  •  ওয়াফলস: বেলজিয়ামের মিষ্টি খাবার
  •  জাপিঙ্কাঙ্কা: পোল্যান্ডের সর্বাধিক জনপ্রিয় স্ট্রিট ফুড

তথ্যসূত্র


  •  https://www.thetravel.com/street-foods-try-around-world/ 


Ridmik News is the most used news app in Bangladesh. Always stay updated with our instant news and notification. Challenge yourself with our curated quizzes and participate on polls to know where you stand.

news@ridmik.news
support@ridmik.news
© Ridmik Labs, 2018-2021