আমিরাতে ১৪০০ পূর্বের প্রাক-ইসলাম যুগের খ্রিষ্টান মঠ আবিষ্কার
আন্তর্জাতিক
আমিরাতে ১৪০০ পূর্বের প্রাক-ইসলাম যুগের খ্রিষ্টান মঠ আবিষ্কার
সংযুক্ত আরব আমিরাতের উপকূলের একটি দ্বীপে আবিষ্কৃত হয়েছে ১৪০০ বছর পুরনো প্রাচীন একটি খ্রিস্টান মঠ। গত বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) দেশটির কর্মকর্তারা এ খবর ঘোষণা করেন। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, এই মঠটি খুব সম্ভবত আরব দেশগুলিতে ইসলাম ধর্ম প্রসারের আগে নির্মিত হয়েছিল। ফলে সিনিয়াহ দ্বীপের এই মঠটি পারস্য উপসাগরের তীরে খ্রিস্টধর্মের ইতিহাসে নতুন পথ দেখালো।
খ্রিস্টান মঠ
খ্রিস্টান মঠ
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ডয়চে ভেলের এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, প্রায় ১৪০০ বছর পূর্বের মঠটি আবিষ্কারে কাজ করেছেন সংযুক্ত আরব আমিরাত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্বের সহযোগী অধ্যাপক টিমোথি পাওয়ার। মঠের বিষয়ে গণমাধ্যমে তিনি বলেন, 'হাজার বছর আগে এখানে অসাধারণ কিছু ঘটেছিল। সেই কথা জানা প্রয়োজন। মঠটি সিনিয়াহ দ্বীপে অবস্থিত। পারস্য উপসাগরের উপকূল বরাবর দুবাই থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বের আমিরাত দ্বীপ এটি।'
খ্রিস্টান মঠ
খ্রিস্টান মঠ
জানা যায়, মঠটি যখন তৈরি হয়, তখন মরুভূমির এমন বিস্তার ঘটেনি। এখনকার মতো তখন সমৃদ্ধ তেল শিল্পের সূচনাও হয়নি। আবুধাবি এবং দুবাইয়ের আকাশছোঁয়া অট্টালিকাও ছিল কল্পনার বাইরে ছিল। আমিরাতে পাওয়া দ্বিতীয় মঠ এটি। সময়ের সাথে হারিয়ে গিয়েছিল মঠ দু'টি। বিশেষজ্ঞদের দাবি, খ্রিস্টানরা ধীরে ধীরে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করা শুরু করলে পরবর্তীতে ইসলাম অনেক বেশি প্রচলিত হয়ে পড়ে। তখনই হারিয়ে যেতে শুরু করে এসব ইতিহাস।
খ্রিস্টান মঠ
খ্রিস্টান মঠ
এদিকে, ৫৩৪ এবং ৬৫৬ সালের মধ্যে মঠের ভিত্তিতারিখে নমুনার কার্বন ডেটিং করা হয়েছে। মঠের পাশে চারটি ঘরের দ্বিতীয় আরেকটি ভবনেরও আলামত মিলেছে। অনুমান করা হচ্ছে, গির্জা বা মঠের প্রথম বিশপের বাড়ি ছিল এটি। গেল বৃহস্পতিবার সংযুক্ত আমিরাতের সংস্কৃতি ও যুব মন্ত্রী নওরা বিনত মোহাম্মদ আল-কাবি এবং আমিরাতের প্রিন্স শেখ মজিদ বিন সৌদ আল মুল্লা এটি পরিদর্শন করেন। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় এই খননকাজে অর্থায়ন করেছে। খননের কাজ এখনও চলছে।
ছবি: সংগৃহীত
ছবি: সংগৃহীত
এদিকে, ইতিহাসবিদের মতে, শুরুর দিকের গির্জা এবং খ্রিস্টান মঠগুলি পারস্য উপসাগর বরাবর বর্তমান ওমানের উপকূল এবং ভারত পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছিল। প্রত্নতাত্ত্বিকরা বাহরাইন, ইরাক, ইরান, কুয়েত এবং সৌদি আরবে অনুরূপ গির্জা এবং মঠ খুঁজে পেয়েছেন। আবিষ্কৃত মঠটির এই এলাকায় অন্তত ১০ হাজার বছর ধরে মানুষের বসবাস ছিল। নতুন করে এই মঠের আবিষ্কার সত্যিই আকর্ষণীয়। উপর থেকে দেখা গেলে বোঝা যাবে, সিনিয়াহ দ্বীপে খ্রিস্টান উপাসকরা চার তলার মঠের একটি একক ঘরের গির্জার মধ্যে প্রার্থনা করতেন। ভিতরের কক্ষগুলিতে ব্যাপটিজমাল হরফ রয়েছে। রুটি বেক করার জন্য একটি চুলা বা গোষ্ঠীবদ্ধ রীতিপালনের জন্য ওয়েফার রয়েছে। একটি বেদিও ছিল সেখানে। গির্জার মূল অংশে ওয়াইনের জন্য একটি ইনস্টলেশনও ছিল। এর এক অজানা ইতিহাস সম্পর্কে মানুষের মধ্যে দেখা দিয়েছে আলাদা কৌতূহল।  
আন্তর্জাতিকধর্মআরব আমিরাত
আরো পড়ুন