Link copied.
পৃথিবীতে প্রতি চারজনে একজন মানসিক ব্যাধিতে ভোগে!
writer
৩১ অনুসরণকারী
cover
পরিসংখ্যান অনুসারে, পৃথিবীতে প্রতি চারজনে একজন ব্যক্তি মানসিক বা আচরণগত ব্যাধিতে ভোগে। কেমন অবাক করা বিষয় নয় কি? এমন হলে তো আমাদের আশেপাশে কিংবা আমরা নিজেরাই হয়তো কত ধরণের মানসিক বা আচরণগত ব্যাধিতে ভুগছি। ঠিক তা-ই। অনেক ধরণের সমস্যাই আমরা প্রতিনিয়ত লক্ষ্য করছি আমাদের নিজেদের মাঝে কিংবা আশেপাশের মানুষের মাঝে। কিন্তু খুব সাধারণভাবেই আমরা বিষয়গুলো নিয়ে নিই। কারণ অনেক ক্ষেত্রেই আমরা এগুলোতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি। তবে যখন আচরণগত সমস্যাগুলো প্রকট আকার ধারণ করে তখনই আমাদের চোখে পড়ে এগুলো ব্যাধি হিসেবে। এই যে আচরণগত বা মানসিক নানান রূপ, কতই না রহস্যময়! একটা মানুষের মস্তিস্কের ভেতরে কতকিছু চলতে পারে, কতরূপে থাকতে পারে। বাইরের চর্মচক্ষুর আড়ালে থেকে যায় তার অনেক রহস্যই। ধরা পরে না সবটুকু।

মানুষের মস্তিষ্ক কতটা রহস্যময় তা আবার প্রমাণ করার জন্য তাদের মধ্যে সবচেয়ে অস্বাভাবিক পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কতগুলো গবেষণা সাইট। সেখান থেকেই অন্যতম কিছু মানসিক ব্যাধি যা আমাদের মস্তিস্ক ধারণ করতে পারে তা-ই তুলে ধরা হল।  
কোয়াসিমোডো সিনড্রোম
cover
কোয়াসিমোডো সিন্ড্রোম, বা বডি ডিসমর্ফিক ডিসঅর্ডার, একটি অত্যন্ত বিপজ্জনক মানসিক ব্যাধি। এটি অত্যধিক অতিরঞ্জিত বা এমনকি কাল্পনিক শারীরিক ত্রুটি সম্পর্কে আবেগপ্রবণ মাত্রাতিরিক্ত চিন্তা। রোগীরা ক্রমাগত আয়নায় নিজেদের দেখতে থাকেন। চেহারার বা শরীরের এমন কোন কোণ খুঁজে বের করার চেষ্টা করে চলেন যেখানে অনুমিত ত্রুটি দৃশ্যমান নয়। কিন্তু তারা তা-ই নিয়েই বিহ্বল হয়ে থাকেন। তারা ছবি তুলতে চান না, যাতে তাদের অপূর্ণতা বা ত্রুটি ছবিতে ধরা না পড়ে। তারা তাদের চেহারার অতিরিক্ত যত্ন নেন। এই বিশেষ ত্রুটির কারণে তাদের প্রেম জীবনও সুখকর হয় না। তাদের আত্মসম্মান কমে যায়। তারা সমাজে অস্বস্তি বোধ করে। সন্দেহ করে যে অন্যরা তাদের "ত্রুটি" লক্ষ্য করছে এবং এটি নিয়ে হাসাহাসি করছে। কি পরিচিত মনে হচ্ছে? এই সিন্ড্রোমের অযৌক্তিকতা প্রকাশ করা হয়েছে নীরব স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র 'কনট্রাকুরপো' তে। 
এরোটোম্যানিয়া
cover
যারা এরোটোম্যানিয়ায় ভুগছেন তারা নিশ্চিত ধরে নেন যে কেউ তাদের প্রেমে পড়েছে। সাধারণত কোন একজন উচ্চতর সামাজিক মর্যাদার লোক বা বিখ্যাত ব্যাক্তি (উদাহরণস্বরূপ, একজন সেলিব্রিটি) তার প্রেমে পড়েছে। রোগীরা বিশ্বাস করে যে তাদের কল্পিত ভক্তরা তাদের প্রতি বিশেষ লক্ষ্য রাখে। গোপন সংকেত, টেলিপ্যাথি এবং মিডিয়াতে কোডেড বার্তার মাধ্যমে তাদের প্রতি মনের ভাব প্রকাশ করে। অসুস্থতার বিরুদ্ধে লড়াই করা কঠিন। এমনকি যদি অনুমিত প্রেমিক/প্রেমিকা সরাসরি "না" বলে, তবে এরোটোম্যানিয়ার রোগী এটিকে একটি গোপন কৌশলের অংশ হিসেবে ব্যাখ্যা করে। তারা মনে করে এটি করা হয়েছে যাতে তাদের সম্পর্ককে সমাজ থেকে আড়াল করে রাখা যায়। এই সিন্ড্রোমটি একটি সিনেমায় উত্থাপিত হয়েছে- 'ফ্রম দ্য ল্যান্ড অব দ্য মুন' (মারিয়ন কোটিলার্ডের চরিত্র)। 
ক্যাপগ্রাস বিভ্রম (ক্যাপগ্রাস ডিলিউশন)
cover
এই সিন্ড্রোমে ভোগা একজন রোগী বিশ্বাস করে যে তাদের কাছের কেউ বা তারা নিজেরাই ডোপেলগ্যাঞ্জারে প্রতিস্থাপিত হয়েছে। ডোপেলগ্যাঞ্জার মানে একজন জীবন্ত ব্যক্তির রহস্যময় ও একদম দ্বিতীয় অবস্থা। এটি একটি জার্মান শব্দ যা আক্ষরিকভাবে অনুবাদ করলে হয়- "double walker" or "double goer"। একজন ডোপেলগ্যাঞ্জার এমন কেউ নন যিনি কেবল আপনার সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ, তবে আপনি যেভাবে হাঁটছেন, অভিনয় করছেন, কথা বলছেন এবং পোশাক পরেছেন তার ঠিক দ্বিগুণ। এই সিনড্রোমের রোগী দাবি করতে পারে যে তাদের দ্বারা কৃত খারাপ কাজগুলি তাদের ডোপেলগ্যাঞ্জার দ্বারা সংঘটিত হয়েছিল, যারা দেখতে ঠিক তাদের মতো। এই ব্যাধি প্রায়শই সিজোফ্রেনিয়া রোগটির সাথে এসে থাকে। F. M. Dostoevsky- এর একই নামের উপন্যাস অবলম্বনে 'দ্য ডাবল ফিচার' ফিল্ম এই ব্যাধিটির মর্ম প্রকাশ করে। 
ফ্রেগোলি বিভ্রম (ফ্রেগোলি ডিলিউশন)
cover
এই ক্ষেত্রে, রোগী ক্যাপগ্রাস বিভ্রমের ঠিক বিপরীত টা বিশ্বাস করে। তারা মনে করে অপরিচিত বা আশেপাশের মানুষের মুখোশের আড়ালে তাদের কাছের কাউকে লুকিয়ে রাখে, যারা ক্রমাগত মেকআপ পরে এবং সাধনার উদ্দেশ্যে তাদের চেহারা পরিবর্তন করে। সিন্ড্রোমটি প্রথম ১৯২৭ সালে বর্ণনা করা হয়েছিল। এক যুবতী মেয়ে বিশ্বাস করতেন যে তিনি যে থিয়েটারে যেতেন সেখান থেকে দুজন অভিনেতা তাকে অনুসরণ করছিলেন, তার পরিচিত বা চেনাজানা লোকদের রূপ নিয়ে।
এই বিষয়টি আংশিকভাবে অ্যানিমেশন মুভি 'আনোমালিসা' তে প্রকাশিত হয়েছে। 
অ্যাডেল সিনড্রোম
cover
অ্যাডেল সিনড্রোম একটি আবেশ যাতে একজন ব্যক্তি একটি প্যাথলজিক্যাল প্রেম স্নেহ অনুভব করে। এমন একটি মানসিক অবস্থা যেখানে একজন ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির প্রতি আচ্ছন্ন হয়ে পরে। অ্যাডেল সিন্ড্রোমের সম্মুখীন ব্যক্তি প্রায়ই বেপরোয়া কাজ কর্ম প্রদর্শন করে থাকবে যদি তারা আগ্রহী ব্যক্তির সাথে থাকার জন্য সেটাকে প্রয়োজনীয় মনে করে। এটাকে অবসেসিভ লাভ ডিসর্ডার বলে। একজন মানুষ যাকে তার ভালোলাগে, তাকে ছাড়া আর কিছুই বুঝে না। একমাত্র সেই ভালোলাগার মানুষটিকেই তার চাই, আর না পেলে সে অত্যন্ত বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে মানসিকভাবে।

ডাক্তাররা সম্প্রতি এটিকে একটি মানসিক ব্যাধি হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন যা একজন ব্যক্তির স্বাস্থ্য ও জীবনকে মারাত্মকভাবে হুমকির সম্মুখীন করে। এটিকে জুয়া, মদ্যপান এবং ক্লেপ্টোম্যানিয়ার সাথে তুলনা করা হয়েছে। রোগের লক্ষণগুলি গভীর বিষণ্নতার সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ কিন্তু অনেক বেশি বিপজ্জনক হতে পারে। একজন ব্যক্তির উপর নিপীড়ন, আত্ম-প্রতারণা, বিভ্রান্তিকর আশা, স্বেচ্ছায় আত্মত্যাগ, বন্ধুদের বা অন্য ঘনিষ্ঠ মানুষের পরামর্শ উপেক্ষা করা, বেপরোয়া পদক্ষেপ নেয়া এবং অন্যান্য বিষয়ে ও কার্যক্রমে সবধরণের আগ্রহ হারিয়ে ফেলা। 'দ্য স্টোরি অব অ্যাডেল এইচ'- এই সিন্ড্রোম এবং সেই তরুণীর নামে এই চলচ্চিত্রটির নামকরণ করা হয়েছিল। 
ক্রিপ্টোম্নেসিয়া
cover
ক্রিপ্টোম্নেসিয়া হল একধরণের স্মৃতিশক্তি দুর্বলতা। এর মাধ্যমে কোন ব্যক্তি কখন কোন বিশেষ ঘটনা ঘটেছিল কিনা, কোন ঘটনা স্বপ্ন নাকি বাস্তব ছিল তা মনে রাখতে পারে না। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, একটি কবিতা- এটা সে নিজে লিখেছিল নাকি কেবল কোথাও থেকে পড়েছিল যা মনে আছে, এটা সে গুলিয়ে ফেলে, মনে করতে পারে না। অন্য কথায়, তথ্যের উৎস ভুলে যায়। এবং সে নির্ধারণ করতে পারে না যে ধারণাটি তার নাকি অন্য ব্যক্তির। এই সিনড্রোম প্রায়ই "jamais vu" ঘটনার সাথে এসে যায়, এটা "deja vu" এর উল্টোটা। যখন হঠাৎ করে এমন অনুভূতি আসে যে একটি সুপরিচিত জায়গা বা ব্যক্তি সম্পূর্ণ অচেনা বা অস্বাভাবিক মনে হয়, যেমনটি প্রথমবার দেখার ক্ষেত্রে হয়। 'দ্য সাইন্স অব স্লিপ' ছবিটিতে একটি অংশে এমন ব্যাধির অবস্থা দেখতে পাবেন।  
অ্যালিস ইন ওয়ান্ডারল্যান্ড সিনড্রোম
cover
এই সিন্ড্রোম রোগীর আশেপাশের বস্তু এবং স্থান সম্পর্কে ধারণা পরিবর্তন করে দেয়। তারা তাদেরকে অনেক ক্ষুদ্র কিংবা বৃহৎ মনে করে বা বুঝতে পারে। আবার তারা ভাবে যে তারা অনেক দূরে কিন্তু একটি অদ্ভুত উপায়ে খুব কাছাকাছি। সবচেয়ে কঠিন ঘটনা হল যখন একজন ব্যক্তি তার নিজের শরীরকে অনুপযুক্তভাবে উপলব্ধি করে। তারা তার শরীরের আকৃতি এবং মাত্রা বুঝতে পারে না। এই ক্ষেত্রে কিন্তু রোগীর চোখ বা অন্য কোন ইন্দ্রিয় অঙ্গ ক্ষতিগ্রস্ত হয় না। বরং পরিবর্তনগুলো শুধুমাত্র মানসিক অবস্থার উপরেই নিয়ন্ত্রিত হয়। 
অবসেসিভ-কম্পালসিভ ডিসঅর্ডার
cover
অবসেসিভ-কমপালসিভ ডিসঅর্ডারে ভুগছেন এমন রোগীরা আবেগপ্রবণ উদ্বিগ্ন চিন্তার শিকার হন। এই অতি চিন্তা তারা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না এবং পরিত্রাণও পায় না রিচুয়ালস বা আচার থেকে। আচার বলতে বিশেষ ক্রিয়া যা একজন ব্যক্তির কাছে মনে হয়, সেগুলি করতে সে বাধ্য। একই সময়ে, একজন ব্যক্তি তার কর্মের অযৌক্তিকতা পুরোপুরি বুঝতে পারে। কিন্তু তার কাছে মনে হয় অপরিপূর্ণতা রয়ে গেছে। যা তাকে অবিশ্বাস্য উদ্বেগের দিকে পরিচালিত করে। এবং শেষপর্যন্ত সে এই আচার-অনুষ্ঠানগুলি, একই কাজ অবিরত পালন করতে থাকে। অবসেসিভ-কম্পালসিভ ডিসঅর্ডার (OCD) এ আক্রান্ত ব্যক্তির একটি উজ্জ্বল উদাহরণ হল 'দ্য অ্যাভিয়েটার' এ লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওর চরিত্রটি। 
প্যারাফ্রেনিয়া
cover
প্যারাফ্রেনিয়া হল প্যারানয়েড বিভ্রম এবং জাঁকজমকের সমন্বয়। রোগীদের মনে বিভ্রান্তিকর ধারনা ক্রমাগত ছদ্ম-হ্যালুসিনেশন এবং "মিথ্যা স্মৃতি" সহ আসতে থাকে। রোগীরা নিজেদেরকে পৃথিবীর শাসক মনে করে, নিজেদের অমরত্ব, ঐশ্বরিক উৎপত্তি বলে দাবি করে। আরও মনে করে তারা এই ছদ্মনামের অধীনে কাজ করে মহান লেখকদের বই লিখেছে ইত্যাদি। এই ধরনের রোগে ভুক্ত মানুষকে খুব অহংকারী এবং রহস্যময় দেখায়। 
মাল্টিপল পার্সোনালিটি ডিজঅর্ডার
cover
মাল্টিপল পার্সোনালিটি ডিজঅর্ডার, বাংলায় যাকে বিচ্ছিন্ন পরিচয় ব্যাধি বলা যায়। এটি একটি বিরল মানসিক ব্যাধি যা একজন ব্যক্তির ব্যক্তিত্বকে বিভক্ত করে এবং এক দেহে বিভিন্ন ব্যক্তিত্বের ছাপ দেখায়। এই রোগে ভোগা ব্যক্তিদের বিভিন্ন লিঙ্গ, বয়স, জাতীয়তা, মেজাজ, মানসিক ক্ষমতা, নানান বৈশ্বিক দৃষ্টিভঙ্গি এবং এমনকি বিভিন্ন অসুস্থতা থাকতে পারে। এই ব্যাধির কারণ হতে পারে- শৈশবে মারাত্মক মানসিক আঘাত। এমন অবস্থায় মনস্তাত্ত্বিক সুরক্ষার উদ্দেশ্যে, শিশুটি তার সাথে কী ঘটছে সেটাকে ব্যাখ্যা করতে শুরু করে যেন এটি অন্য কারও সাথে ঘটছে।

ব্যক্তিত্ব বিচ্ছিন্নতা সম্পর্কে সবচেয়ে আকর্ষণীয় ঘটনা ১৯৭০ এর দশকের শেষের দিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ঘটেছিল। যখন ধর্ষক বিলি মিলিগানকে গ্রেফতার করা হয়েছিল, তখন দেখা গেল যে তার মাথায় বাস করছিল ২৪ জন লোক। মানে ২৪ জন লোকের ব্যাক্তিত্ব সে নিজের মাঝে ধারণ করেছিল। ড্যানিয়েল কিসের বইয়ে এই গল্পটি পড়তে পারেন। স্প্লিট মুভির প্রধান চরিত্রও এমন ব্যাধিতে ভুগছে হিসেবে দেখানো হয়েছে।
References: 
  • https://brightside.me/inspiration-psychology/10-mysterious-mental-disorders-our-brain-is-capable-of-326710/
  • https://my.clevelandclinic.org/health/diseases/9792-dissociative-identity-disorder-multiple-personality-disorder
  • https://www.cbtcognitivebehavioraltherapy.com/obsessive-love-disorder/

Ridmik News is the most used news app in Bangladesh. Always stay updated with our instant news and notification. Challenge yourself with our curated quizzes and participate on polls to know where you stand.

news@ridmik.news
support@ridmik.news
© Ridmik Labs, 2018-2021