Link copied.
ইসলাম
cover

১৩০০ বছরের পুরনো মাটির মসজিদ পাওয়া গেলো ইরাকে

ইসলামধর্ম
১৬ ঘণ্টা আগে

ইরাকে একটি ব্রিটিশ জাদুঘর খনন মিশন মাটি দিয়ে তৈরি একটি মসজিদের সন্ধান পেয়েছে। কর্মকর্তারা বলছেন, প্রত্নতাত্ত্বিকভাবে সমৃদ্ধ ডাই কার অঞ্চলে সন্ধান পাওয়া মসজিদটি ৬০ হিজরি বা ৬৭৯ খ্রিস্টাব্দে তৈরি করা হয়ে থাকতে পারে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এখবর জানিয়েছে। সর্বশেষ খনন তথ্য অনুসারে, আল-রাফা’ই শহরে পাওয়া মসজিদ ২৬ ফুট প্রস্ত এবং ১৬ ফুট দীর্ঘ। মসজিদের মাঝখানে ইমামের জন্য ছোট উঁচু স্থান রয়েছে। এতে ২৫ জন মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারতেন। অঞ্চলটির অনুসন্ধান ও খনন বিভাগের প্রধান আলি শালগাম জানান, এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ও বড় ধরনের সন্ধান। কারণ এটি পুরোপুরি মাটি দিয়ে তৈরি এবং ইসলামের প্রারম্ভিক সময়ে এটি নির্মাণ করা হয়েছিল। শালগাম জানান, খুব ধর্মীয় স্থানের সন্ধান পাওয়া গেছে যেগুলো উমাইয়া আমলের। ক্ষয়ে যাওয়ার কারণে ওই সময়ের ইসলাম সম্পর্কে খুব বেশি তথ্য জানা যায়নি। তিনি বলেন, ইসলামের প্রারম্ভিক সময় সম্পর্কে আমরা খুব কম তথ্য জানতে পেরেছি। পানি, বাতাস ও বৃষ্টির কারণে ক্ষয়ে যাওয়াতে ভবনটির কিছু ধ্বংসাবশেষ আমরা পেয়েছি।

cover

ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন একই পরিবারের ৫ জন

ইসলামবরিশাল
১৯ ঘণ্টা আগে

বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় একই পরিবারের পাঁচ সদস্য খ্রিস্টান ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এনায়েত উল্লাহর আদালতে উপস্থিত হয়ে এফিডেভিটের মাধ্যমে তাদের নামও পরিবর্তন করা হয়। ইসলাম ধর্ম গ্রহণকারীরা হলেন- গৌরনদী উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের কলাবাড়িয়া গ্রামের খ্রিস্টানপাড়ার বাসিন্দা কাঠমিস্ত্রি ছিন্টু রায় (৪৫), তার স্ত্রী লিন্ডা রায় (৩৫), ছেলে ভিক্টর রায়, এডমন্ড রায় (১৩) ও মেয়ে উর্মী রায় (৬)। এর মধ্যে ছিন্টুর নাম পরিবর্তন করে সেন্টু ইসলাম খলিফা, লিন্ডার নাম আয়েশা খলিফা, ভিক্টরের নাম তামিম ইসলাম খলিফা, এডমন্ডের নাম রিয়াজুল ইসলাম খলিফা ও উর্মীর নাম উর্মী ইসলাম খলিফা রাখা হয়েছে। ধর্ম পরিবর্তনের বিষয়ে জানতে চাইলে সেন্টু ইসলাম খলিফা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ওয়াজ শুনে ও ইসলামি বই পড়ে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বৃহস্পতিবার প্রথমে স্থানীয় মসজিদের ইমামের কাছে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে স্বেচ্ছায় কলেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করি।

cover

বিয়েকে যে কারণে বেশি গুরুত্বারোপ করে ইসলাম

ইসলামধর্ম
৩ দিন আগে

পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন এবং সর্বপ্রথম প্রতিষ্ঠান হলো পরিবার। আদম-হাওয়া এ দুজন মানুষের প্রেমময় পরিবার থেকেই আজকের এই বিকশিত সাড়ে সাত শ কোটি মানুষের উন্নত ও আধুনিক পৃথিবী এতটা পথ পেরিয়ে এসেছে। আরও কত বছর পৃথিবী টিকে থাকবে তা আমাদের জানা নেই। তবে পরিবারের প্রয়োজনীয়তা এবং মানুষের কাছে পরিবারের আবেদন পৃথিবীর শেষাবধি সেই শুরুর মতোই থাকবে এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। তাই আল্লাহ-প্রদত্ত প্রতিটি ধর্মব্যবস্থ্যায় পরিবারকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে অনেক বেশি। আল কোরআন থেকে আমরা জানতে পারি মানুষ সৃষ্টির পেছনে আল্লাহর উদ্দেশ্য হলো পরীক্ষা করে দেখা যে সৎকর্মে কে সবচেয়ে ভালো। সত্য-সুন্দর আর সৎকর্মের পৃথিবী গড়ে তোলার জন্য পরিবারের বিকল্প নেই অ্যারিস্টটলও সে কথা স্বীকার করেছেন। রসুল (সা.) পারিবারিক সম্প্রীতির ব্যাপারে এত বেশি বলেছেন যে হাদিস ও ফিকহ শাস্ত্রে পরিবার নিয়ে আলাদা অধ্যায়, ভলিউমও রয়েছে। কোরআন পরিবার সম্পর্কে সংক্ষেপে বলেছে কিন্তু মৌলিক ও গুরুত্বপূর্ণ কথা বাদ দেয়নি। সুরা নুরসহ বিভিন্ন সুরায় আল্লাহতায়ালা বলেছেন, সামর্থ্যবান নারী-পুরুষের বিয়ে দেওয়াটা জরুরি। বিয়ের পর পারিবারিক বন্ধন এবং লজ্জাস্থানের হেফাজত রাষ্ট্রীয়ভাবে দেখভালের কথা বলেছে কোরআন।

cover

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম মুসলিম শাসিত যে শহর!

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান রাজ্যের হ্যামট্রামিক শহরের নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলম্যানের সকল পদে মুসলিম প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসেই যা আগে কখনও ঘটেনি। এর মধ্যে দুইজন আবার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত। যুক্তরাষ্ট্রের বুকে এ যেন এক টুকরো বাংলাদেশ। দোকানপাট এবং অফিস-আদালতের সাইনবোর্ডে বাংলা ভাষা ও বাঙালি সংস্কৃতির নানা কিছু দেখা যায় সেখানে। অবশ্য কেবল বাংলাদেশকে নয়, সব দেশের অভিবাসীদেরই আপন করে নিয়েছে মিশিগান রাজ্যের ছোট্ট শহর হ্যামট্রামিক। এ উদারতার জন্যই শহরের ৩০ হাজার বাসিন্দার অর্ধেকেরও বেশি অভিবাসী। যাদের বড় অংশই মুসলিম। বৈচিত্র্যে ভরপুর মাত্র সাড়ে ৫ বর্গকিলোমিটার আয়তনের হ্যামট্রামিকের নবনির্বাচিত মেয়র আমির গালিব বলেন, মুসলিম সরকার হিসেবে আমরা উদাহরণ তৈরি করতে চাই। এর বেশি কিছু নয়। এখানে সবকিছু এখানকার নিয়মেই চলবে। আমরা সবার প্রতিনিধিত্ব করবো। মুসলিম হিসেবে আমার বিশ্বাস অন্য কারো ওপর চাপিয়ে দিতে চাইবো না।

cover

দুবাইয়ে নবী ও রসূলদের জীবনী নিয়ে ডিজিটাল প্রদর্শনী

ইসলামধর্ম
৪ দিন আগে

দুবাই এক্সপো ২০২০- এ মহানবী (সা.)-এর জীবনী নিয়ে প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে মুসলিম ওয়ার্ল্ড লিগ (এমডাব্লিওএল)। দুবাই প্যাভিলয়নে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি দিয়ে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। ‘দ্য প্রফেট এজ ইফ ইউ সি দিম’ বা ‌‘মহানবীকে যেন আপনি দেখছেন’ নামের এ প্রদর্শনীতে ভিড় করছেন দর্শনার্থীরা। মহনবী (সা.)-এর জীবনী ভিত্তিক প্রদর্শনীতে তার শান্তি, প্রেম, স্নেহ, উদারতা, সহবস্থান ও মানবতাবোধ তুলে ধরা হয়। তাঁর স্নেহপূর্ণ দিকনির্দেশনায় বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছিল শান্তির আবহ। এছাড়াও মহানবীর নৈতিকতাবোধ ও ইসলামের বৈশ্বিক বার্তার সৌন্দর্য তুলে ধারা হয়।সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় হলো, এ প্রদর্শনীতে পবিত্র কোরআনে বর্ণিত ২৫জন নবীর পরিচয় তুলে ধরা হয়। আরবি, ইংরেজি, ফ্রেঞ্চ, হিব্রু ও ইন্দোনেশিয়ান বিশ্বের পাঁচটি ভাষায় তাদের পরিচিতি বর্ণনা করা হয়। এখানে এসে দর্শকরা নানা বিষয়ে জানতে পারবেন। নবীদের উপাধি, ডাকনাম, বৈশিষ্ট্য, নৈতিকতা, শৈশব, আত্মীয়-স্বজন, তাদের ওপর অবতীর্ণ গ্রন্থ, তাদের অলৌকিক কাজ ও তাদের ভাষায় কথা বলতেন এসব তথ্য তুলে ধরা হয়।

cover

আরবি-ইংরেজিতে পুরো কোরআন ক্যালিওগ্রাফি করছেন ইয়ামেনি শিল্পী!

ইসলামধর্ম
৬ দিন আগে

তুরস্কের রাজধানী ইস্তাম্বুলে বসবাসরত ইয়েমেনি শিল্পী জাকি আল হাশিমি আরবি-ইংরেজি ভাষায় পবিত্র কোরআনের ক্যালিওগ্রাফি তৈরির কাজ করছেন। আনাদোলু এজেন্সিকে দেওয়া একটি সাক্ষাতকারে আল হাশিমি বলেন, ‘সম্প্রতি আমি একটি প্রকল্পের আওতায় নকশ লিপিতে পবিত্র কোরআনের কাজ শুরু করেছি। আগামী এক বছরের মধ্যে এ কাজ শেষ করব। ইসলামী শিল্পকলার মধ্যে আরবি ক্যালিগ্রাফি অনন্য বৈশিষ্ট্যের অধিকারী একটি শিল্প।’ তিনি আরও বলেন, আরবি ক্যালিগ্রাফি পবিত্র গ্রন্থের প্রতিনিধিত্ব করে। ফলে এর মধ্যেও পবিত্রতার ছোঁয়া বিদ্যমান। তাই অন্যান্য ইসলামী শিল্পের তুলনায় এর প্রতি অনেকের মনোযোগ ছিল। শিল্পচর্চাকে তিনি জীবনের সংকটকালের স্বস্তি হিসেবে মনে করেন। ইয়েমেনি এই গুণী শিল্পী চারটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছেন। এর মধ্যে ওআইসি তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ইস্তাম্বুল ভিত্তিক ইসলামের ইতিহাস, শিল্পকলা ও সংস্কৃতি বিষয়ক গবেষণাকেন্দ্র থেকে দুটি পুরস্কার পেয়েছেন।

cover

যে কারণে লোক দেখানো আমল নিন্দনীয়

ইসলামধর্ম
৬ দিন আগে

পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘আমি জিন ও মানব জাতিকে সৃষ্টি করেছি শুধু আমার ইবাদতের জন্য।’ (সুরা জারিয়াত, আয়াত : ৫৬)। উপরোক্ত আয়াতে স্পষ্ট যে, লোক দেখানো আমল করা সরাসরি আল্লাহর নির্দেশের লঙ্ঘন যা কবিরা গুনাহর শামিল। আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি অর্জন ব্যাতীত অন্য কোন উদ্দেশ্যে আমল করলে তা কবুল হবে না। অন্য আয়াতে ইরশাদ হয়েছে, ‘যে ব্যক্তি তাঁর প্রভুর সঙ্গে সাক্ষাতের আশা করে সে যেন নেক কাজ করে এবং তার প্রতিপালকের ইবাদতে কাউকে শরিক না করে।’ (সুরা কাহফ, আয়াত : ১১০)। উল্লিখিত আয়াতের ব্যাখ্যায় তাফসিরবিদরা বলেন, ‘সে যেন লোক দেখানোর জন্য আমল না করে।’ লোক দেখানো আমল দ্বীনকে ক্রীড়া-কৌতুক হিসেবে গ্রহণ করার মতো অন্যায়। আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা বলেন, ‘যারা তাদের দ্বীনকে ক্রীড়া-কৌতুক রূপে গ্রহণ করেছিল এবং জাগতিক জীবন তাদের প্রতারিত করেছিল, আমি তাদের ভুলে যাব, যেমন তারা তাদের এই দিনের সাক্ষাতকে ভুলে গিয়েছিল এবং যেভাবে তারা আমার নিদর্শনগুলো অস্বীকার করেছিল।’ (সুরা আরাফ, আয়াত : ৫১)।

cover

আল্লাহর নিরাপত্তা লাভের উপায়

ইসলামধর্ম
৭ দিন আগে

যারা আল্লাহর আদেশ মান্য করে চলে আল্লাহ তাদেরকে নিজের নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে দেন এবং বিভিন্নভাবে রক্ষা করেন। গোটা সৃষ্টিজগৎ তাঁদের অনুকূল হয়ে যায়। আবু তৈয়ব তাবারি (রহ.) নামে একজন নেককার বান্দা ছিলেন। তাঁর বয়স এক শ বছর অতিক্রম করেছিল, তবু তিনি তাঁর বুদ্ধিমত্তা, শক্তি ও পরিপূর্ণ ইন্দ্রিয় শক্তি উপভোগ করতেন। এমনকি দূর-দূরান্তে সফরও করতেন। লোকেরা এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তাবারি (রহ.) বললেন, ‘এগুলো সে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ, যাকে ছোটবেলায় গুনাহ থেকে রক্ষা করেছি, ফলে আল্লাহ আমার বৃদ্ধ বয়সে সেগুলোকে দুর্বলতা থেকে রক্ষা করেছেন।’ (আল উকুক : ১/১৩)। মুহাম্মদ ইবনে মুনকাদির (রহ.) বলেন, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ নেককার ব্যক্তি, তার সন্তান ও তার সন্তানের সন্তান, সে যে গ্রামে বাস করে সে গ্রামবাসীকে ও তার চারপাশের এলাকাবাসীকে রক্ষা করেন। তারা আল্লাহর নিরাপত্তাবেষ্টনীর মধ্যে অবস্থান করে।’ (জামিউল উলুম ওয়াল হিকাম : ২০/৯)।

cover

যে সময়ে সবচেয়ে বেশি দোয়া কবুল হয়

ইসলামধর্ম
৯ দিন আগে

দোয়াকে হাদিসে ইবাদতের মগজ বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, ‘যখন তোমার কাছে আমার বান্দা আমার সম্পর্কে জিজ্ঞেস করে (তখন বলে দাও যে), নিশ্চয়ই আমি তাদের কাছে। প্রার্থনাকারী যখন আমাকে ডাকে, তখন আমি তার ডাকে সাড়া দেই। সুতরাং তারাও যেন আমার ডাকে সাড়া দেয় ও ঈমান আনয়ন করে। আশা করা যায়, তারা সফলকাম হবে।’ (সূরা বাকারা, আয়াত: ১৮৬)। দোয়া কবুলের কিছু গুরুত্বপূর্ণ সময় নিয়ে আলোচনা করা হলো: আজান-ইকামতের মধ্যবর্তী সময়ে দোয়া কবুল হয়। কেননা রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, আজান ও ইকামতের মধ্যবর্তী দোয়া ফিরিয়ে দেওয়া হয় না। (তিরমিজি, হাদিস: ২১২)। ফরজ নামাজের পর দোয়া করা: (তিরমিজি, হাদিস: ৩৪৯৮)। শেষরাতে তাহাজ্জুদের সময় দোয়া কবুল হয়। (মুসলিম, হাদিস: ৭৫৮)। এ ছাড়া রোগাক্রান্ত অবস্থায়, দূরবর্তী সফরের সময় এবং মা-বাবার দোয়া কবুল হয় বলে হাদিসে এসেছে। দোয়া কবুলে আশাবাদী থাকাও জরুরী।

cover

কাবা প্রাঙ্গণে বাংলাসহ ১১ ভাষায় মুসল্লিদের উত্তর দেবে রোবট!

কাবা প্রাঙ্গণে আরবি, ইংরেজি, ফ্রেঞ্চ, রুশ, ফার্সি, তার্কিশ, চাইনিজ, বাংলা ও হাউসাসহ মোট ১১ ভাষায় ইসলামী বিষয়ে নানা ধরনের প্রশ্নের উত্তর দিয়ে মুসল্লিদের সহায়তা করবে রোবট। মক্কার পবিত্র মসজিদুল হারামে মুসল্লিদের অত্যাধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর নানা ধরনের সেবা দেওয়া হচ্ছে । তারই অংশ হিসেবে এখন মুসল্লিদের নানা প্রশ্নের উত্তর সেবা দিতে ব্যবহৃত হচ্ছে টাচ স্কিন রোবট। অত্যাধুনিক এই রোবটের মাধ্যমে পবিত্র কাবা প্রাঙ্গণে মুসল্লিদের ওমরাহ পালন, ইসলাম বিষয়ক জিজ্ঞাসার জবাবসহ ইসলামী পণ্ডিতদের সঙ্গে কথা বলার স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা করা হয়েছে। খবর আরব নিউজের। বিদেশি ওমরাযাত্রীদের জন্য বিশ্বের ১১ ভাষায় তাৎক্ষণিক অনুবাদ সেবাও দিয়ে যাচ্ছে চার চাকার রোবটগুলো। বিশ্বের ১১ ভাষায় মুসল্লিদের সেবা দেবে এই রিমোট কন্ট্রোল রোবট।

cover

আজ ফাতিহা-ই-ইয়াজদাহম

ইসলামধর্ম
১০ দিন আগে

যুগের শ্রেষ্ঠ ওলি শেখ মুহিউদ্দিন বড়পীর আবদুল কাদির জিলানির (রহ.) মৃত্যুবার্ষিকী আজ। এদিন দিনটি উপমহাদেশের মুসলিমদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দিনটি এ অঞ্চলের মানুষের কাছে ফাতিহা-ই-ইয়াজদাহম নামে পরিচিত। বড়পীর আবদুল কাদির জিলানি ছিলেন কাদেরিয়া তরিকার প্রবর্তক, শরিয়ত ও তরিকত জগতের মহাসম্রাট, যুগের শ্রেষ্ঠ মুহাদ্দিস, মুফাসসির, ফকিহ এবং দার্শনিক। তাঁর শিক্ষার পেছনে রয়েছে মায়ের অবদান। তাঁর মায়ের পরামর্শে ৪৮৮ সনে ১৮ বছর বয়সে বাগদাদে রওনা হন। বড়পীরের মাধ্যমেই ইসলাম আগের অবস্থায় ফিরে এসেছিল। এজন্যই তাঁর উপাধি ছিল মুহিউদ্দিন। বড়পীর অসংখ্য গ্রন্থ রচনা করেন। এসব গ্রন্থের মধ্যে ‘ফতহুল গায়েব গুনিয়াতুত তালেবিন’, ‘ফতহুর রব্বানি’, ‘কালিদায়ে গাওসিয়া’ উল্লেখযোগ্য। মহান এই সুফি হিজরি ৫৬১ সনের ১১ রবিউস সানি মৃত্যুবরণ করেন। ফাতিহা-ই-ইয়াজদাহম উপলক্ষ্যে সারা দেশে মসজিদ, মাদরাসা ও খানকায় বড়পীরের জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা ও দোয়ার মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

cover

অজুর যত ফজিলত

ইসলামধর্ম
১১ দিন আগে

সর্বদা অজু অবস্থায় থাকার অনেক ফজিলত বর্ণিত হয়েছে রাসুল (স)-এর হাদীসে। রিজিক বৃদ্ধি ও আত্মিক পরিশুদ্ধতা অর্জনে অজুর গুরত্ব অপরিসীম। মুসলমানের দৈনন্দিন জীবনের অপরিহার্য অংশ অজু। কেননা পাঁচ ওয়াক্ত নামাজসহ অন্যান্য ইবাদতের জন্য অজু অপরিহার্য। অজু তথা পবিত্রতা অর্জন ছাড়া নামাজ কবুল হয় না। রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, নামাজ বেহেশতের চাবি আর নামাজের চাবি অজু। (সুনানে তিরমিজি, হাদিস : ৪)। অজুর মাধ্যমে পাপ মার্জনা : অজুর মাধ্যমে বান্দা পাপমুক্ত হয়। (সহিহ মুসলিম, হাদিস : ২৪৪)। অজুতে মর্যাদা বৃদ্ধি : অজুর মাধ্যমে আল্লাহর দরবারে বান্দার মর্যাদা বৃদ্ধি ঘটে। (সহিহ মুসলিম, হাদিস : ২৫১)। অজু জান্নাত লাভের মাধ্যম: (সহিহ বুখারি, হাদিস : ১১৪৯)। অজু নুর সৃষ্টি করে: আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, মুমিনের জ্যোতি সে পর্যন্ত পৌঁছাবে, যে পর্যন্ত সে পানি পৌঁছাবে। (সহিহ মুসলিম, হাদিস : ২৫০)।

cover

রাসুলের (স) জীবনী পড়ে মুসলিম হলেন ৮০ বছরের নারী

ইসলামধর্ম
১৩ দিন আগে

প্রিয়নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর জীবনী পড়ে মুগ্ধ হয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন এক বুলগেরিয়ান নারী। তুরস্কের আনাদোলু এজেন্সির খবরে বলা হয়েছে, ৮০ বছর বয়সী স্পাস্কা ইভানোভা তুরস্কের উত্তর পশ্চিম শহর এডরিনে ভ্রমণ করেন। এই ভ্রমণের অংশ হিসেবে তিনি প্রদেশটির দারুল ইফতা বিভাগ (ইসলামি উপদেষ্টা পরিষদ) ভ্রমণ করেন। সেখানে তিনি ইসলাম গ্রহণে তার আগ্রহের কথা জানান। এরপর তুরস্কের এডিরন শহরের দারুল ইফতা বিভাগ বুলগেরিয়ান এই নারীর ইসলাম গ্রহণ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির মুফতি আলা উদ্দিন বুজকুরাত ও তার সহকারী জয়নব কায়া। ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর স্পাস্কা ইভানোভা নিজের নাম পরিবর্তন করে ফাতেমা রেখেছেন। অনুষ্ঠানে স্পাস্কা ইভানোভাকে (ফাতেমা) পবিত্র কোরআন উপহার দেওয়া হয়। খবরে বলা হয়, ইসলাম নিয়ে দীর্ঘদিন পড়াশোনা করেন স্পাস্কা ইভানোভা। মহানবী (সা.)-এর জীবনী পড়ে তিনি খুবই প্রভাবিত হন।

cover

প্রিয় শহর মদিনায় ফিরে এসেছি: ইসলাম গ্রহণ করা ব্রিটিশ কনসাল

ইসলামধর্ম
১৩ দিন আগে

সউদী আরবের জেদ্দায় নিযুক্ত ব্রিটিশ কনসাল জেনারেল ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন ২৫ বছর আগে। মুসলিম হওয়ার পর নিজের নাম পরিবর্তন করে তিনি সাইফ রেখেছিলেন। এ কথা তিনি গত এপ্রিলে জানান, যা সংযুক্ত আরব আমিরাতের দ্য ন্যাশনাল নিউজ প্রকাশ করেছিল। এবার এই কনসাল জেনারেল সউদী আরবের মদিনায় পবিত্র মসজিদে নববী প্রাঙ্গণে তোলা ছবি নিজের টুইটারে প্রকাশ করেছেন। এরপর তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে। টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে, আমার প্রিয় শহর মদিনায় ফিরে এসেছি এবং মসজিদে নববীতে ফজর নামাজ আদায় করতে পেরেছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্রিটিশ কনসাল জেনারেলের এই ছবি প্রকাশের পর তাকে অভিনন্দন ও তার প্রশংসা করতে থাকেন অনেকে। মোটিভেশনাল স্পিকার মুতাহ ওয়াসিন শাবাজ বিলও নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে ব্রিটিশ কনসালের এই ছবি প্রকাশ করেন।

cover

রিয়া বা লোক দেখানো ইবাদত আমল নষ্ট করে

ইসলামধর্ম
১৪ দিন আগে

লোক দেখানো কাজকর্ম ইসলামে অত্যন্ত নিন্দনীয়। ইসলামের দৃষ্টিতে এই রিয়া বা লোক দেখানো কাজকর্মকে বলা হয়েছে ছোট শিরক। মানুষকে দেখানোর জন্য বা সমাজে বাহবা পাওয়ার জন্য কোনো আমল করা কিংবা সমাজে লোকে তাকে ধার্মিক বলবে এবং সম্মান করবে, দানশীল বলবে, এ উদ্দেশ্যে নিজেকে মানুষের সামনে পরহেজগার হিসেবে উপস্থাপিত করার চেষ্টাই রিয়া। রিয়া হলো লোক দেখানো ইবাদত। অথচ আমাদের ইবাদত হতে হবে কেবলমাত্র আল্লাহতায়ালার সন্তুষ্টির জন্য। এরমধ্যে সামান্যতম অন্য কোনো উদ্দেশ্যে আনা যাবে না। তাহলে ওই আমল বরবাদ হয়ে যাবে। আল্লাহতায়ালা ইরশাদ করেন, ‘যে ব্যক্তি তার প্রভুর সান্নিধ্য লাভের আশা রাখে সে যেন নেক কাজ করে এবং তার ইবাদতে অন্য কাউকে শরিক না করে। (সূরা কাহফ: ১১০)’ আল্লাহ আরও বলেন, ‘ওইসব নামাজি লোকের জন্য ধ্বংস, যারা অন্যমনস্কভাবে নামাজ পড়ে এবং অন্যকে দেখায়। (সূরা মাউন: ৪-৬)।’ কিয়ামতের দিন আল্লাহতায়ালা রিয়াকারীদের বলবেন, ‘তোমরা তাদের কাছে যাও যাদের তোমরা দুনিয়ায় ইবাদত-বন্দেগি করে দেখাতে। দেখ তাদের কাছ থেকে ইবাদতের কোনো প্রতিদান পাও কি না।’ মুসনাদে আহমদ।


Ridmik News is the most used news app in Bangladesh. Always stay updated with our instant news and notification. Challenge yourself with our curated quizzes and participate on polls to know where you stand.

news@ridmik.news
support@ridmik.news
© Ridmik Labs, 2018-2021