Link copied.
খালেদা জিয়া
cover

'শঙ্কামুক্ত খালেদা জিয়া'

অপারেশনের পর নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ‘শঙ্কামুক্ত’ বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসক দলের অন্যতম সদস্য ও বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ডা. জেড এম জাহিদ হোসেন। তিনি জানান, বেগম জিয়ার ছোট একটি অপারেশন হয়েছে। অপারেশনের পর তিনি সুস্থ আছেন। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আলাপ করেছেন। এখন তিনি আইসিইউতে চিকিৎসাধীন। তিনি সব ধরনের বিপদ থেকে মুক্ত। সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা জানান।

cover

আইসিইউ থেকে কেবিনে খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালের আইসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের কেবিনে নেয়া হয়। এদিকে, সোমবার বিকালে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়ার শরীরে ছোট্ট একটি (এক থেকে দেড় সেন্টিমিটার পরিমাণ) লাম্প পাওয়া গিয়েছিল। তাই সেটি বায়োপসি করা হয়েছে। ইতোমধ্যে তিনি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গেও কথা বলেছেন।

cover

অস্ত্রোপচারের পর আইসিইউতে খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে একটি অস্ত্রোপচারের পর আইসিইউতে রাখা হয়েছে। সোমবার এভারকেয়ার হাসপাতালে তার অস্ত্রোসম্পন্ন হয়। খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. জাহিদ হোসেন বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ডা. জাহিদ হোসেন জানান, খালেদা জিয়ার একটি মাইনর অপারেশন করা হয়েছে। এখন তিনি আইসিইউতে আছেন। ডা. জাহিদ বলেন, 'ম্যাডামের (খালেদা জিয়া) ছোট একটি বায়োপসি করা হয়েছে। অপারেশনের পরে তার সঙ্গে ছেলে তারেক রহমান কথা বলেছেন। ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দারও কথা বলেছেন। ছোট ছেলের স্ত্রী সৈয়দা শর্মিলা রহমান সিথি কথা বলেছেন।' তিনি বলেন, এখন তিনি (খালেদা জিয়া) আইসিইউতে চিকিৎসাধীন আছেন। তবে তিনি ভালো আছেন।

cover

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো না: কোকোর স্ত্রী

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো না। তাঁর পুরোনো সমস্যাগুলোর পাশাপাশি শরীরে নতুন জটিল একটি রোগের উপসর্গ দেখা দিয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে। খালেদা জিয়াকে দেখতে গতকাল রোববার যুক্তরাজ্য থেকে দেশে এসেছেন তাঁর প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান। বিমানবন্দর থেকে তিনি সরাসরি রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার কাছে যান। এখনো তিনি হাসপাতালে আছেন বলে জানা গেছে। অবশ্য খালেদা জিয়ার বড় বোন সেলিমা ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান ঢাকায় এসেছেন বলে তিনি পত্রিকায় দেখেছেন। তাঁর সঙ্গে এখন পর্যন্ত যোগাযোগ বা কথাবার্তা হয়নি। খালেদা জিয়ার বোন সেলিমা ইসলাম আজ সোমবার দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর (খালেদা জিয়া) অবস্থা ভালো না। জ্বর আসে, কিডনির সমস্যা আছে, সুগার নিয়ন্ত্রণে আসছে না। আরও নানা জটিলতা আছে। এ জন্য আমরা সরকারকে বারবার বলেছি যে তাঁকে বিদেশে পাঠাব। কিন্তু সরকার তো কিছুতেই রাজি হচ্ছে না। তাঁর যে জটিলতা এখানে এর চিকিৎসা সম্ভব নয়, বিদেশে যেতে হবে।’

cover

খালেদা জিয়ার অস্ত্রোপচার চলছে

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে বিএনপি'র চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার একটি ছোট্ট অপারেশন চলছে। আজ সোমবার দুপুর পৌনে ১২টায় তাঁকে অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়েছে বলে হাসপাাতালের একটি সূত্র কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছে। এর আগে বেলা সাড়ে ১১টায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বেগম জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে হাসপাতালে যান। আজ বিকেল ৪টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে একটি সংবাদ ব্রিফিংও করবেন ফখরুল ইসলাম। জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কালের কন্ঠকে বলেন, বিকেলে সংবাদ সম্মেলন রয়েছে। সেখানে বিস্তারিত জানানো হবে।

cover

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ১১ মামলার শুনানি ২২ নভেম্বর

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা হত্যা ও রাষ্ট্রদ্রোহের মামলাসহ ১১টি মামলার শুনানির জন্য আগামী ২২ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে মামলাগুলোর শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু হাইকোর্ট খালেদা জিয়ার পক্ষে অধিকাংশ মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেছেন জানিয়ে আদালতের কাছে সময় আবেদন করেন খালেদার আইনজীবী। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত সময় আবেদন মঞ্জুর করে পরবর্তী শুনানির জন্য ২২ নভেম্বর তারিখ ধার্য করেন।

cover

ফের খালেদা জিয়াকে দেখতে গেলেন ফখরুল

ফের বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে দেখতে গেলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বুধবার (২০ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৩টায় রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে বিএনপিপ্রধানকে দেখতে যান ফখরুল। এর আগে গত ১৬ ও ১৩ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে যান ফখরুল। গত ১২ অক্টোবর জ্বর আসায় খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, খালেদা জিয়ার আজ (বুধবার) শরীরে তাপমাত্রা কম রয়েছে। তবে তার কিডনির সমস্যা আগের মতোই রয়েছে।

cover

হাসপাতালে ১ সপ্তাহ থাকতে পারেন খালেদা জিয়া

আবারও থেমে থেমে জ্বর আসছে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার। দু’দিন ধরে এই জ্বর শুরু হলেও তার সঠিক কোনো কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না চিকিৎসকরা। গতকাল রাতেও মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা একসঙ্গে বসে পর্যালোচনা করেছেন। আরও কিছু নিয়মিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা দিয়েছেন। সেগুলোর রিপোর্ট দেখার পর নতুন করে সিদ্ধান্ত দিবেন তারা। তবে তিনি আরও সপ্তাহখানেক হাসপাতালে থাকতে পারেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। কোভিড-১৯ পরবর্তী জটিলতা ছাড়াও আর্থ্রাইটিস, কিডনি, লিভার, দাঁত ও চোখের নানা ধরনের রোগে ভুগছেন তিনি। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ প্রসঙ্গে বলেন, চিকিৎসকেরা সাধ্যমতো চেষ্টা করছেন।

cover

খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় দেশব্যাপী দোয়া কর্মসূচি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) বাদ জুমা দেশব্যাপী দোয়া ও মোনাজাতের আয়োজন করেছে বিএনপি।বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, বিএনপির উদ্যোগে শুক্রবার বাদ জুমা দেশব্যাপী মসজিদে মসজিদে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীকে দোয়া ও মোনাজাতে শরিক হওয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

cover

জ্বর কমছে না খালেদা জিয়ার

বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জ্বর কমছে না বলে জানিয়েছেন তাঁর চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের একজন সদস্য। তিনি জানান, জ্বরের মাত্রা ১০২ ডিগ্রির মধ্যে ওঠানামা করছে। জ্বর না কমার কারণ খুঁজছে মেডিকেল বোর্ড। এর আগে গত মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন খালেদা জিয়া। বিকেলে গুলশানের বাসভবন ফিরোজা থেকে বের হয়ে হাসপাতালে পৌঁছান তিনি। কিছুদিন ধরে অসুস্থ বোধ করছেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। গত সপ্তাহে জ্বরে আক্রান্ত হন তিনি। বেশ কিছু শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতেই মূলত তাঁকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। এভারকেয়ার হাসপাতালে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে মেডিক্যাল বোর্ড পরীক্ষার ফলাফল পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন।

cover

খালেদা জিয়া হাসপাতালে ভর্তি

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছেবিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে। মঙ্গলবার বিকেলে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক ডা. আরিফ মাহমুদ। এ প্রসঙ্গে খালেদা জিয়ার চিকিৎসক অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ বোধ করছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। এভারকেয়ারে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক শাহাব উদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে মেডিকেল বোর্ড উনার সব কিছু পর্যালোচনা করবেন। এর আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৭ এপ্রিল এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন খালেদা জিয়া। সেখানে ৫৪ দিন চিকিৎসা শেষে গত ১৯ জুন রাতে গুলশানের বাসভবনে ফেরেন খালেদা জিয়া।

cover

হাসপাতালে খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) দুপুর ৩টা ৩৯ মিনিটে তার গুলশানের বাসভবন ফিরোজা থেকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়। বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, ম্যাডামকে হাসপাতালে নেওয়ার আগে তার সঙ্গে দেখা করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি ফিরোজায় কিছু সময় থেকে ম্যাডামের শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নিয়েছেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের একটি সূত্র জানান, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থায় খুব একটা ভালো না।

cover

আজ হাসপাতালে যাবেন খালেদা জিয়া

শারীরিক পরীক্ষার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া আজ মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে যাবেন। বিকেল ৩টায় গুলশানের বাসা থেকে খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নেয়া হবে। বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। শামসুদ্দিন দিদার বলেন, শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য বিকেল তিনটায় গুলশানের বাসা থেকে বের হয়ে রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে যাবেন বেগম খালেদা জিয়া।

cover

নাইকো দুর্নীতি: খালেদার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানি ৪ নভেম্বর

নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আগামী ৪ নভেম্বর ধার্য করেছেন আদালত। ঢাকার ৯ নম্বর (অস্থায়ী) বিশেষ জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক নজরুল ইসলাম আজ মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) এই দিন ধার্য করেন। আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে হাজিরা দাখিল করেন তাঁর আইনজীবী। অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আজ ধার্য ছিল। কিন্তু বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান ছুটিতে থাকায় ভারপ্রাপ্ত বিচারক নতুন এই দিন ধার্য করেন। মামলার বিবরণ অনুযায়ী, কানাডিয়ান প্রতিষ্ঠান নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের আর্থিক ক্ষতিসাধন ও দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর দুদকের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম তেজগাঁও থানায় খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলাটি করেন।

cover

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মানহানির দুই মামলার শুনানি ১৪ অক্টোবর

মিথ্যা তথ্য দিয়ে ভুয়া জন্মদিন পালন এবং যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দেওয়ার অভিযোগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মানহানির দুই মামলায় অভিযোগ (চার্জ) গঠনের ওপর শুনানির জন্য আগামী ১৪ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন আদালত। ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নুর বৃহস্পতিবার এ দিন ঠিক করেন। এদিন খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করার দিন ছিল। কিন্তু অসুস্থ থাকায় তাকে আদালতে হাজির করা সম্ভব হয়নি। পরে চার্জ শুনানির নতুন দিন ঠিক করেন বিচারক।


Ridmik News is the most used news app in Bangladesh. Always stay updated with our instant news and notification. Challenge yourself with our curated quizzes and participate on polls to know where you stand.

news@ridmik.news
support@ridmik.news
© Ridmik Labs, 2018-2021