আওয়ামী লীগ | Ridmik News
আওয়ামী লীগ
বিএনপি ক্ষমা চেয়ে পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে যেতে পারে: তথ্যমন্ত্রী
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপির যদি লজ্জা থাকে তাহলে জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়ে পদ্মাসেতুর ওপর দিয়ে তারা যেতে পারেন। তিনি বলেন, আমরা চাই বিএনপি পদ্মাসেতু ব্যবহার করুক। মঙ্গলবার (১৭ মে) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ১৭ মে প্রধানমন্ত্রীর ৪২তম ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। খালেদা জিয়া, মির্জা ফখরুল সাহেবদের ‘আওয়ামী লীগ সরকার পদ্মাসেতু করতে পারবে না' এমন মন্তব্য এখনও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘুরে বেড়ায় উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, এখন পদ্মাসেতু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন, আমরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। ফখরুল সাহেবরা পদ্মাসেতুর ওপর দিয়ে যাবেন নাকি নিচ দিয়ে আওয়ামী লীগের নৌকায় করে যাবেন, সেটি ভাবছি। তাদের যদি লজ্জা থাকে, জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়ে পদ্মাসেতুর ওপর দিয়ে তারা যেতে পারেন। আমরা চাই আপনারা পদ্মাসেতু ব্যবহার করেন।
যুক্তরাজ্যে ডেপুটি মেয়রের দায়িত্বে সিলেটের নাজমা
সিলেটের মেয়ে নাজমা রহমান যুক্তরাজ্যের কেমডেন কাউন্সিলে গত ৫ মে ডেপুটি মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। এটা ছিল তার দ্বিতীয় জয়। তার সাফল্যে এবার আরেকটি পালক যুক্ত হয়েছে। তিনি এবার একবছরের জন্য কেমডেন কাউন্সিলের ডেপুটি মেয়রের দায়িত্ব পেয়েছেন। নাজমার স্বামী সিলেট সিটি করপোরেনের চারবারের নির্বাচিত কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ। যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত আজাদ মঙ্গলবার (১৭ মে) রাতে জানান, একজন মেয়রের পাশাপাশি কাউন্সিলরদের মধ্য থেকে নির্বাচিত করা হয় ডেপুটি মেয়র। এর ধারাবাহিকতায় গত সোমবার নাজমাকে এ দায়িত্ব প্রদান করা হয়। এক বছরের জন্য ডেপুটি মেয়রের দায়িত্ব পেলেন নাজমা। তিনি ওয়েস্টহ্যামস্টেড এলাকা থেকে লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। পেশায় পুষ্টিবিদ।
ন্যায়বিচারে প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করা সরকারের অন্যতম লক্ষ্য: আইনমন্ত্রী
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, এসডিজির অন্যতম টার্গেট - জনগণের ন্যায়বিচারে প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের অন্যতম লক্ষ্য। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ন্যায়বিচারে প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে সরকার ডিজিটাইজেশনের ওপর গুরুতারোপ করেছে। এর অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট ও অধস্তন আদালতে সীমিত পরিসরে ডিজিটাইজেশন চালু করা হয়েছে। অধিকন্তু আইন ও বিচার বিভাগ একটি গণমুখী বিচার বিভাগ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে যুগান্তকারী ই-জুডিশিয়ারি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। আজ মঙ্গলবার (১৭ মে) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এসডিজি বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা বিষয়ক দ্বিতীয় জাতীয় সম্মেলনের প্যারালাল সেশন- ১ এ প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী আরও বলেন, জনগণের ন্যায়বিচারে প্রবেশাধিকার সংরক্ষণের জন্য করোনার মহামারীকালেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় আইন ও বিচার বিভাগ 'আদালত কর্তৃক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ, ২০২০ এর আওতায় ভার্চুয়াল আদালত ব্যবস্থা চালু করে।
১৭ মে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতন্ত্রের অগ্নিবীণার প্রত্যাবর্তন দিবস: তথ্যমন্ত্রী
তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আজ থেকে ৪১ বছর আগে ১৯৮১ সালের ১৭ মে ব্যক্তি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনই ছিলো না, ছিলো মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, গণতন্ত্রের অগ্নিবীণা ও উন্নয়ন-প্রগতির প্রত্যাবর্তন। মঙ্গলবার (১৭ মে) দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সমেম্মলন কেন্দ্রে ১৭ মে প্রধানমন্ত্রীর ৪২তম ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, 'গত ৪১ বছরের পথ চলায় জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বদলে গেছে। গত ১৩ বছরে প্রতিটি মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে। এ অভূতপূর্ব উন্নতি সহ্য হচ্ছে না বিধায় আবার ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে, গর্তের ভেতর থেকে বিএনপি-জামাত উঁকি দিচ্ছে এবং বিশৃঙ্খলা করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।' নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে প্রত্যয় ব্যক্ত করে তিনি বলেন, 'শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বলতে চাই, আমরা এখনো মাঠে নামি নাই, প্রয়োজনে নামবো। যদি কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়, তাদের প্রতিহত করবো'।
দক্ষতা নির্ভর শিক্ষা বিস্তারে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: শিক্ষা উপমন্ত্রী
শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেছেন দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে সক্ষম জনগোষ্ঠী গঠনে কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত দক্ষতা নির্ভর শিক্ষা বিস্তারে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। মঙ্গলবার (১৭ মে) সচিবালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনার লিলি নিকোলস উপমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসলে তিনি এসব কথা বলেন। উপমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে দক্ষকর্মী তৈরি করতে বৃত্তিমূলক কাজের সাথে জড়িত ব্যক্তিদের দিয়ে কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ দেয়া যেতে পারে। দেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বিশেষায়িত বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে যৌথভাবে গবেষণা ও উদ্ভাবনী কাজের নেতৃত্ব দিতে পারে।
দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে দেশে ফিরেছিলাম: প্রধানমন্ত্রী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে আমি দেশে ফিরেছিলাম। কারণ এটা আমার বাবার (জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান) স্বপ্ন ছিল। মঙ্গলবার (১৭ মে) সকালে রাজধানীর শেরেবাংলানগরে এনইসি মিলনায়তনে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি সভায় যোগ দেন। ১৯৮১ সালের ১৭ মে নির্বাসিত জীবন থেকে ফিরে আসার দিনটির কথা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, যখন আমি বিমানবন্দরে অবতরণ করি, তখন আমি আমার নিকটাত্মীয়দের কাউকে পাইনি, কিন্তু লাখো মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি। এটাই আমার একমাত্র শক্তি এবং আমি এই শক্তি নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছি। দেশে ফেরার পর তিনি দেশব্যাপী সফরের সময় নানা প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হয়েছেন উল্লেখ করে বলেন, তবে আমি বাংলাদেশের মানুষের আস্থা, ভালোবাসা পেয়েছি। কত অপপ্রচার, কত কথা, কত কিছু, তার পরও বাংলাদেশের জনগণ আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছে।
শেখ হাসিনা ফিরেছেন বলেই দেশে গণতন্ত্র ফিরেছে: মেয়র লিটন
রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরে এসেছেন বলেই দেশে গণতন্ত্র ফিরেছে। মৌলবাদ-জঙ্গিবাদ থেকে মুক্ত হয়েছে দেশ। দেশের সর্বক্ষেত্রে উন্নয়ন হয়েছে। বাংলাদেশ কখনো শ্রীলংকা হবে না, কারণ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনীতি সাবলম্বী হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধু মানুষের মুখের হাসি ফোটানোর যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, সেই কাজটি বাস্তবায়ন করেছেন তারই সুযোগ্যকন্যা শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার (১৭ মে) দুপুরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে 'মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও বাংলাদেশের গণতন্ত্র' শীর্ষক বিশেষ আলোচনা সভায় মূখ্য আলোচকের বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। রাবির শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে এই সভার আয়োজন করা হয়।
সরকারি-বেসরকারি খাতে সাশ্রয়ী হওয়ার নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর
সরকারি-বেসরকারি খাতে ব্যয় কমিয়ে সাশ্রয়ী হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (১৭ মে) অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় ২০২২-২৩ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এনইসি) অনুমোদনের সময় প্রধানমন্ত্রী ও এনইসি চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা এ নির্দেশনা দেন। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সরকারি-বেসরকারি খাতের সব বিষয়ে সাশ্রয়ী হতে হবে। বিদ্যুৎ-পানি থেকে শুরু করে কোনো খাতেই অপচয় করা যাবে না। প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, আজকের এনইসি সভায় অপচয় রোধের বিষয়টি গুরুত্ব পেয়েছে। জনগণের অর্থ ব্যয়ে সাশ্রয়ী হতে হবে। প্রধানমন্ত্রী ভ্রমণের বিষয়ে নির্বাহী আদেশ দিয়েছেন। এম এ মান্নান বলেন, সম্পদ সবারই সীমিত। অহেতুক সম্পদ অপচয় করার কোনো মানে নেই। শুধু অপচয় রোধ নয়, জনগণের জন্য ও দেশের জন্য প্রকল্প এগিয়ে নিতে হবে। অহেতুক বাড়াবাড়ি করা যাবে না বলেও নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে: উপমন্ত্রী শামীম
পানি সম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, বাংলাদেশ আজকে বিশ্বের রোল মডেল। জননেত্রী শেখ হাসিনার ক্ষমতায় আছেন বলেই নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, বঙ্গবন্ধু ট্যানেল, মেট্রোরেল, গভীর সমুদ্রবন্দর সহ বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। আবারও জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে। তাই সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার (১৭ মে) শরীয়তপুরের সখিপুরে থানা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্ম নিয়েছিলেন বলেই আজ বিশ্ব মানচিত্রে বাংলাদেশ নামক একটি রাষ্ট্রের জন্ম হয়েছিলো। বাংলাদেশের মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধুর রক্ত ও আদর্শের উত্তরাধিকার জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্ম না হলে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হতো না।
দেশের অগ্রযাত্রা রোধে চক্রান্ত চলছে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী
মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের এ অগ্রযাত্রা রোধ করার জন্য চক্রান্ত চলছে। পাশপাশি গণতান্ত্রিক ধারা ব্যাহত করারও পাঁয়তারা চলছে। বিগত দিনে বিএনপি দেশে দুঃশাসন কায়েম করেছিল। তারা চক্রান্ত করার পাশাপাশি খুন-খারাপি করে আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করার মাধ্যমে চিরদিন ক্ষমতায় থাকতে চেয়েছিল। কিন্তু বাংলার জনগণ তা মেনে নেয়নি। মন্ত্রী সোমবার (১৭ মে) বিকালে স্বাধীনতার পদকপ্রাপ্ত (মরণোত্তর) ভাওয়াল বীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের ১৮তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে স্মৃতিচারণ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, তাদের শুধু বিচার নয়, তাদের রাজনৈতিক কবর রচনা করতে হবে। শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার তার জীবদ্দশায় সৎপথে থেকে রাজনীতি করেছেন। তিনি মাটি ও মানুষের নেতা হিসেবে আমাদের সামনে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তার রাজনীতি ছিল আর্দশের রাজনীতি।
গোটা জাতি চায় পদ্মা সেতু শেখ হাসিনার নামে হোক: কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গোটা জাতি জাতিই চায় পদ্মার সেতু শেখ হাসিনার নামে হোক। শেখ হাসিনার সাহসের সোনালী ফসলের নাম পদ্মা সেতু। জুনেই এ সেতু চালু করা হবে। মঙ্গলবার (১৭ মে) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে দলের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কর্মময় জীবনের কথা তুলে ধরে কাদের বলেন, শেখ হাসিনা না থাকলে নিজ অর্থায়নে পদ্মা সেতু হতো না। জুনেই পদ্মা সেতু উদ্বোধন হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, হঠাৎ কেউ কেউ পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের তারিখ বলে বেড়াচ্ছেন। এতো অধৈর্য হবেন না। চূড়ান্ত তারিখ দিবেন জননেত্রী শেখ হাসিনা।
আজ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস
আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ ১৭ মে (মঙ্গলবার)। ১৯৮১ সালের ১৭ মে দীর্ঘ নির্বাসন শেষে তিনি দেশের মাটিতে ফিরে আসেন। ১৯৮১ সালের এদিন বিকাল সাড়ে ৪টায় ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি বোয়িং বিমানে ভারতের রাজধানী দিল্লী থেকে কলকাতা হয়ে তৎকালীন ঢাকা কুর্মিটোলা বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান শেখ হাসিনা। ওই দিন বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে বঙ্গবন্ধু কন্যাকে একনজর দেখতে ছুটে আসেন লাখো মানুষ। সেদিন মিছিলের শহরে পরিণত হয় রাজধানী ঢাকা। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলে স্লোগান। ঝড়-বৃষ্টিও মিছিলের গতিরোধ করতে পারেনি। সব প্রতিকূলতা উড়িয়ে তৎকালীন কুর্মিটোলা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ও শেরেবাংলা নগর পরিণত হয় জনসমুদ্রে। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বাণী দিয়েছেন। বাণীতে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকে বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ইতিহাসে একটি মাইলফলক বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। দিবসটি উপলক্ষে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন দেশব্যাপী কর্মসূচি নিয়েছে।
ভারতে পি কে হালদারের শাস্তি হতে পারে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গে গ্রেফতার হওয়া প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পি কে হালদারের ভারতে শাস্তি হতে পারে। সোমবার (১৬ মে) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পি কে হালদারের বিষয়ে ভারত এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি। স্বরাষ্ট্র কিংবা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, যেকোনো মন্ত্রণালয়কে জানাতে পারে দেশটি। ভারত সরকার হয়তো তাকে (পি কে হালদার) শাস্তি দেবে। সে শাস্তির মেয়াদ হয়তো বাংলাদেশে এসে শেষ করতে হবে। আমাদের সে রকম প্রসিডিউর আছে। এসব ক্ষেত্রে উভয় দেশের নীতি অনুযায়ী আমরা কাজ করছি। পি কে হালদারকে দেশে আনার বিষয়টি দীর্ঘমেয়াদি হতে পারে কি না-এমন প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমার ধারণা ভারতের সঙ্গে যে সোনালী অধ্যায়-সম্পর্ক, তাতে অবশ্যই আমরা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যা করতে চাই তারা আমাদের কথা শুনবে এবং সেই অনুয়ায়ী আমরা কাজ করবো। পি কে হালদারকে দেশে ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে সরকারের সদিচ্ছা রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, যা যা করার তা আমরা করবো।
ধান ও চাল সংগ্রহে কোনো অনিয়ম সহ্য করা হবে না: খাদ্যমন্ত্রী
খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, কোনোক্রমেই গুদামে খারাপ, ভাঙ্গা কিংবা বিবর্ণ চাল যেন না ঢুকে সে ব্যাপারে খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের সজাগ থাকতে হবে। এসময় চালের কোয়ালিটির প্রশ্নে কোনো আপস করা যাবে না বলে উল্লেখ করেন তিনি। সোমবার (১৬ মে) দুপুরে তাহিরপুর খাদ্য গুদাম(এলএসডি) পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের এসব কথা বলেন তিনি। খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বোরো প্রকিউরমেন্ট চলছে। হাওরে অনেক জমিতে ধানের চাষ হলেও আগাম বন্যায় ফসলের কিছুটা ক্ষতি হয়েছে। হাওরের ধান চালের একটা বড় অংশ সরকার প্রকিউর করে উল্লেখ করে তিনি বোরো প্রকিউরমেন্ট সফল করার আহবান জানান।
বিশ্বচোর বিএনপির মুখে অর্থ পাচারের কথা মানায় না: তথ্যমন্ত্রী
তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘যে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও তার ভাই অর্থ পাচারের দায়ে আদালতে দন্ডিত, যাদের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কালো টাকা সাদা করেছেন, যাদের আমলে দেশ পরপর পাঁচবার দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়, বিশ্বচোরদের মুখে অর্থ পাচার নিয়ে কথা মানায় না।’ সোমবার (১৬ মে) দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সমসাময়িক প্রসঙ্গে তিনি এসব কথা বলেন। ড. হাছান আরও বলেন, ‘যারা এই ধরণের অর্থ পাচার করেছে, আমরা সেগুলো উদঘাটন করছি, তাদেরকে আইনের আওতায় আনছি এবং সেই কারণেই পিকে হালদার ধরা পড়েছে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এবং তার ভাই ছাড়াও আরো কারা অর্থ পাচার করেছে আমাদের জানা আছে, আস্তে আস্তে সেগুলোও আপনারা জানতে পারবেন। আমরা সেগুলো উদঘাটন করছি। জননেত্রী শেখ হাসিনা সেগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন এবং এটি অব্যাহত থাকবে।’