করোনাভাইরাস | Ridmik News
করোনাভাইরাস
করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পাঁচজনের প্রাণহানি হয়েছে। এই সময়ে শনাক্ত হয়েছেন আরও ৪৮০ জন। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ৩৬৮ জনে। আর মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২০ লাখ ২৫ হাজার ৬৭৭ জন। শনিবার (১ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। উক্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৪৪৩ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৬৫ হাজার ৬৩১ জন। ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ১২১টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৩ হাজার ১৪১টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৫.২৮ শতাংশ।
দেশে করোনায় আরও ১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৭০৮
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও ১ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এই সময়ে শনাক্ত হয়েছেন আরও ৭০৮ জন। এ নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৯ হাজার ৩৬৩ এবং মোট শনাক্ত রোগী ২০ লাখ ২৫ হাজার ১৯৭ জন। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৪ হাজার ৮৫১টি, অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪ হাজার ৮২৮টি। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ১ কোটি ৪৮ লাখ ৭৭ হাজার ৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৬৬ শতাংশ। এখন পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬১ শতাংশ। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৮৭ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ ১৯ লাখ ৬৫ হাজার ১৮৮ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ০৪ শতাংশ। মারা গেছেন ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ।
করোনায় শনাক্তের হার ১৩ শতাংশের ওপরে, মৃত্যু ২
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ২৯ হাজার ৩৬২ জনে দাঁড়িয়েছে। একই সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৬৭৯ জন। ফলে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ২৪ হাজার ৪৮৯ জনে। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনা বিষয়ক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৫৩ শতাংশ বলে এতে উল্লেখ করা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৫৪ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৬৪ হাজার ৫০১ জন। এ সময় ৫ হাজার ৩২টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৫ হাজার ১৭টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৫৩ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬১ শতাংশ।
করোনায় শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৭ শতাংশ
দেশে গত একদিনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে আরও ৬৬৫ জন। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ২৩ হাজার ৮১০ জনে। এ সময় চার হাজার ৬৭৮টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় চার হাজার ৭২৮টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ০৭ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় কেউ মারা যায়নি। এখন পর্যন্ত মারা গেছে ২৯ হাজার ৩৬০ জন। এ সময়ে করোনা শনাক্ত
করোনা টিকার বিশেষ ক্যাম্পেইন শুরু আজ
রাজধানীসহ সারাদেশে ফের করোনা টিকার বিশেষ ক্যাম্পেইন শুরু হচ্ছে বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর)। এই ক্যাম্পেইন চলবে আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, ৩ অক্টোবরের পর আর প্রথম ডোজের টিকা দেয়া হবে না। এই ক্যাম্পেইনে প্রথম জোড না পাওয়া ৩৩ লাখ ও দ্বিতীয় ডোজ না নেয়া ৯০ লাখ মানুষকে টিকার আওতায় আনতে চায় সরকার। গত ১৭ সেপ্টেম্বর এক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছিলেন, ২৮ সেপ্টেম্বর টিকার বিশেষ ক্যাম্পেইন শুরু হবে। এর পর থেকে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেয়া বন্ধ হয়ে যেতে পারে। কারণ অনেক টিকার মেয়াদও শেষ। মন্ত্রী আরও জানান, আগামী ১১ অক্টোবর জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে শুরু হবে ৫ থেকে ১১ বছরের শিশুদের টিকাদান কার্যক্রম। এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সারাদেশে ১৫ হাজার কেন্দ্রে টিকা দেয়ার ব্যবস্থা থাকছে। এই ক্যাম্পেইনের পর আর কোনো টিকার ক্যাম্পেইন হবে না। তাদের হাতে এখনও ৩ কোটি টিকা রয়েছে। এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে প্রথম ও দ্বিতীয় এবং বুস্টার ডোজ টিকা দেয়া হবে।
দেশে ২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৭১৮
ফের দেশে বাড়তে শুরু করেছে করোনা মহামারির প্রকোপ। গেল ২৪ ঘণ্টায় প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে সারাদেশে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে আরও ৭১৮ জন।
করোনায় আরও দুইজনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫৭২
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত দেশে করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ৩৫৩ জনের। এদিন নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৫৭২ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ২১ হাজার ৬৯০ জন।
করোনায় বিপর্যস্ত ক্ষুদ্র শিল্প, ব্যবসা হারিয়েছেন ৮৪ শতাংশ উদ্যোক্তা
করোনার কারণে ব্যবসা হারিয়েছেন ৮৪ শতাংশ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। এছাড়াও ঋণ পরিশোধ করতে পারেননি ২২ শতাংশ প্রান্তিক মানুষ। আর আর্থিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সঞ্চয় ভেঙেছেন ৪৭ ভাগ আর বেঁচে থাকতে নিজের সম্পদ বিক্রি করেছেন ২১ ভাগ নারী। করোনা সংক্রমণে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম নিয়ে পরিচালিত এক গবেষণা রিপোর্টে এসব তথ্য উঠে এসেছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, এমন অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়াতে সরকারের নীতি সহায়তা দরকার। পরিসংখ্যান বলছে, গ্রামীণ অর্থনীতির ৭৪ ভাগ অর্থের যোগান দেয় ক্ষুদ্র ঋণদাতা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। পরিসংখ্যান বলছে ক্ষুদ্রঋণ সেবা নেন দেশের প্রায় প্রায় সাড়ে তিন কোটি মানুষ। জিডিপিতে এই খাতের অবদান প্রায় ১৫ ভাগ। করোনা সংক্রমণে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রমের প্রভাব নিয়ে ওই গবেষণা রিপোর্ট প্রকাশ করেছে এনজিওদের জোট, ইন্টারন্যাশনাল নেটওয়ার্ক অব অল্টানেটিভ ফাইন্যান্সিং ইনস্টিটিউট। ওই গবেষণায় আরও বলা হয়, করোনার মধ্যে দীর্ঘ সময় বন্ধ ছিল সার্বিক কার্যক্রম। তখন ঋণ বিতরণ এবং সঞ্চয় জমার ক্ষেত্রে স্থবিরতা তৈরি হয়।
একদিনে ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৫০
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চার জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ২৯ হাজার ৩৫১ জনে দাঁড়িয়েছে। এ সময়ে আরো ৩৫০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ২১ হাজার ১১৮ জনে। শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৫০ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৬২ হাজার ৫১৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৬৬৮টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ২ হাজার ৬৬৮টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ১২ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬১ শতাংশ। ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। ২০২১ সালের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন সর্বাধিক ২৬৪ জন করে মারা যান।
করোনা টিকার প্রথম ডোজ বন্ধ কবে, জানাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর
আগামী ৩ অক্টোবরের পর আর কোনো ব্যক্তিকে করোনার প্রথম ডোজের টিকা দেবে না সরকার। শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এতে বলা হয়েছে, ৩ অক্টোবরের পর থেকে দ্বিতীয় ডোজ, বুস্টার বা তৃতীয় ডোজের জন্য উপযুক্ত ব্যক্তিরাই টিকা পাবেন। এর বাইরে টিকা পাবে ৫-১১ বছর বয়সী শিশুরা। অধিদপ্তর জানিয়েছে, করোনার সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে দ্রুত নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রথম ডোজের ভ্যাকসিন নিতে হবে। অন্যথায় ৩ অক্টোবরের পর আর প্রথম ডোজ নেয়া যাবে না। এর আগে, গত শনিবার দুপুরে রাজধানীর হোটেল রেডিসন-ব্লুতে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, দেশে এখনও করোনা টিকার প্রথম ডোজ নেয়নি প্রায় ৩৩ লাখ মানুষ। এছাড়া, দ্বিতীয় ডোজ নেয়নি প্রায় ৯৪ লাখ মানুষ। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে দেশব্যাপী করোনা টিকার বিশেষ ক্যাম্প শুরু হবে। ১ম, ২য় ও বুস্টার ডোজ টিকার এ বিশেষ ক্যাম্পেইন কার্যক্রম চলবে ৩ অক্টোবর পর্যন্ত।
দেশে করোনা আক্রান্তের হার বাড়ছেই। গথ ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার বেড়ে ১৫ শতাংশ ছাড়িয়েছে। এ সময় করোনা আক্রান্ত হয়ে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত দেশে করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ৩৪৭ জনের। এদিন নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৬২০ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ২০ হাজার ৭৬৮ জন।
করোনায় আরও একজনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬৭৮
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৭৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ২০ হাজার ১৪৮ জনে। এ সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে মোট মৃত্যু সংখ্যা বেড়ে ২৯ হাজার ৩৪৬ জনে দাঁড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৩৯ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৬১ হাজার ৮১৯ জন। ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৮১২টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৪ হাজার ৭৯৮টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ১৩ শতাংশ। বুধবার শনাক্তের হার ছিল ১৪ দশমিক ৭৩ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬১ শতাংশ। ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। ২০২১ সালের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন সর্বাধিক ২৬৪ জন করে মারা যান।
দেশে ঊর্ধ্বমুখী করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে মোট মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ৩৪৫ জনে। এ সময় ৬০১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ১৮ হাজার ৮২৯ জনে।
অক্টোবরের পরে টিকা না-ও পেতে পারেন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
দেশে এখনো করোনা টিকার প্রথম ডোজ নেয়নি প্রায় ৩৩ লাখ মানুষ, দ্বিতীয় ডোজ নেয়নি প্রায় ৯৪ লাখ মানুষ। তাদেরকে দ্রুত টিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ৩ অক্টোবর থেকে প্রথম ডোজ বন্ধ হতে পারে। এরমধ্যেই প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজে বাদ পরা মানুষদের টিকা নিতে হবে।
করোনায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত
করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় ৩৬৩ জনের দেহে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এর আগে, বৃহস্পতিবার করোনা একজনের মৃত্যু এবং ৪৩৮ জনের দেহে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছিল। বিজ্ঞপ্তির তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৩৪১টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৩ হাজার ৩৪০টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৮৭ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬১ শতাংশ। দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ২০ লাখ ১৬ হাজার ৯৪৬ জন। এরমধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ৩৩৯ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৯ লাখ ৬০ হাজার ৪৭ জন। উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম তিনজনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর দেশে প্রথম করোনায় একজনের মৃত্যু হয়।