রিয়েল এস্টেট এর তথ্যভিত্তিক খবর । Religion News | Ridmik News
রিয়েল এস্টেট
ম্যাজিক ব্রিকস: একদিনে ১০ তলা ভবন নির্মাণ করে যে চীনা প্রযুক্তি
চীন শুধুই বিশ্ব বাণিজ্য, ইলেক্ট্রনিক সামগ্রী উৎপাদনের জন্য পরিচিত নয়। নিজেদের প্রকৌশল দক্ষতাকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার জন্যেও সুপরিচিত দেশটি। পৃথিবীতে দ্রুত সময়ে একটি হাই-স্পিড রেললাইন স্থাপন থেকে শুরু করে বিশ্বের গভীরতম গিরিখাত দিয়ে একটি হাইওয়ে তৈরি করা।
শেলটেক: দুই বন্ধুর হাতে প্রতিষ্ঠিত এক আবাসন নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের সফলতার গল্প
শেলটেক লিমিটেড বাংলাদেশের অন্যতম আবাসন নির্মাণ প্রতিষ্ঠান। স্কুল পড়ুয়া দুই বন্ধুর হাত ধরে আবাসন নির্মাণ প্রতিষ্ঠানটির জন্ম। এর মূল ব্যবসা আবাসন খাতে। বাংলাদেশে যে কয়টি কোম্পানি প্রথম দিকে আবাসন শিল্পে পদার্পণ করে তাদের একটি শেলটেক। এটি ’৮৮-এর শেষ দিকে যাত্রা শুরু করে। নব্বইয়ের দশকে ১০-১২টার বেশি মানসম্মত কোম্পানি ছিল না।
বিটিআই: গৃহনির্মাণ শিল্পে শীর্ষে পৌঁছানো এক আবাসন কোম্পানির গল্প
১৯৮৪ সালে যাত্রা শুরু করে বিল্ডিং টেকনোলজি অ্যান্ড আইডিয়াস লিমিটেড (বিটিআই)। প্রথম দিকে ইস্টার্ন হাউজিং, প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট এবং ইস্পাহানি গ্রুপের একটি হাউজিং কোম্পানিসহ মোট তিনটি কোম্পানি বাংলাদেশে হাউজিং ব্যবসায় সম্পৃক্ত ছিল। চতুর্থ কোম্পানি হিসেবে বিটিআইয়ের যাত্রা শুরু। এই রিয়েল এস্টেট কোম্পানি বাংলাদেশের সবচেয়ে বিখ্যাত ও প্রাচীন রিয়েল এস্টেট কোম্পানি। যাত্রালগ্ন থেকেই বিটিআইয়ের মিশন ছিল গৃহনির্মাণ শিল্পে শীর্ষে পৌঁছানো। লক্ষ্যে পৌঁছাতে এই রিয়েল এস্টেট কোম্পানির ছিল নিজস্ব এক মূলমন্ত্র। সেই মূলমন্ত্রের কথা জানিয়েছেন বিল্ডিং টেকনোলজি অ্যান্ড আইডিয়াস লিমিটেডের (বিটিআই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্থপতি এফ আর খান।
ম্যাজিক ব্রিকস: একদিনে ১০ তলা ভবন নির্মাণ করে যে চীনা প্রযুক্তি
চীন শুধুই বিশ্ব বাণিজ্য, ইলেক্ট্রনিক সামগ্রী উৎপাদনের জন্য পরিচিত নয়। নিজেদের প্রকৌশল দক্ষতাকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার জন্যেও সুপরিচিত দেশটি। পৃথিবীতে দ্রুত সময়ে একটি হাই-স্পিড রেললাইন স্থাপন থেকে শুরু করে বিশ্বের গভীরতম গিরিখাত দিয়ে একটি হাইওয়ে তৈরি করা।
শেলটেক: দুই বন্ধুর হাতে প্রতিষ্ঠিত এক আবাসন নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের সফলতার গল্প
শেলটেক লিমিটেড বাংলাদেশের অন্যতম আবাসন নির্মাণ প্রতিষ্ঠান। স্কুল পড়ুয়া দুই বন্ধুর হাত ধরে আবাসন নির্মাণ প্রতিষ্ঠানটির জন্ম। এর মূল ব্যবসা আবাসন খাতে। বাংলাদেশে যে কয়টি কোম্পানি প্রথম দিকে আবাসন শিল্পে পদার্পণ করে তাদের একটি শেলটেক। এটি ’৮৮-এর শেষ দিকে যাত্রা শুরু করে। নব্বইয়ের দশকে ১০-১২টার বেশি মানসম্মত কোম্পানি ছিল না।
বিটিআই: গৃহনির্মাণ শিল্পে শীর্ষে পৌঁছানো এক আবাসন কোম্পানির গল্প
১৯৮৪ সালে যাত্রা শুরু করে বিল্ডিং টেকনোলজি অ্যান্ড আইডিয়াস লিমিটেড (বিটিআই)। প্রথম দিকে ইস্টার্ন হাউজিং, প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট এবং ইস্পাহানি গ্রুপের একটি হাউজিং কোম্পানিসহ মোট তিনটি কোম্পানি বাংলাদেশে হাউজিং ব্যবসায় সম্পৃক্ত ছিল। চতুর্থ কোম্পানি হিসেবে বিটিআইয়ের যাত্রা শুরু। এই রিয়েল এস্টেট কোম্পানি বাংলাদেশের সবচেয়ে বিখ্যাত ও প্রাচীন রিয়েল এস্টেট কোম্পানি। যাত্রালগ্ন থেকেই বিটিআইয়ের মিশন ছিল গৃহনির্মাণ শিল্পে শীর্ষে পৌঁছানো। লক্ষ্যে পৌঁছাতে এই রিয়েল এস্টেট কোম্পানির ছিল নিজস্ব এক মূলমন্ত্র। সেই মূলমন্ত্রের কথা জানিয়েছেন বিল্ডিং টেকনোলজি অ্যান্ড আইডিয়াস লিমিটেডের (বিটিআই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্থপতি এফ আর খান।
রাজধানীতে ভবন নির্মাণে ড্যাপের নতুন সিদ্ধান্ত, প্রজ্ঞাপন জারি
রাজধানীতে ভবন নির্মাণে এখন থেকে উচ্চতার বিধিনিষেধ আর থাকছে না। তবে এলাকাভিত্তিক ফ্লোর এরিয়া রেশিও (এফএআর) ব্যবস্থা হয়েছে। এ অব্যস্থায় এলাকার নাগরিক সুবিধা ও রাস্তার প্রশস্ততা অনুযায়ী ভবনের আয়তন নির্ধারণ হবে।
লাগামহীন রডের বাজার, নেপথ্যে যেসব কারণ
দেশে প্রতিদিন আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে রডের দাম। গত বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) দেশের বাজারে সর্বকালের সর্বোচ্চ দামে বিক্রি হয়েছে ভবন নির্মাণের প্রধান এই কাঁচামাল। অন্যদিকে, রডের মূল্য এক সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে ৩ থেকে ৫ হাজার টাকা! সোমবার (২২ আগস্ট) কোম্পানি ভেদে (৬০ গ্রেডের ওপরে) খুচরা বাজারে প্রতি টন রডের দাম ছিল ৯১ থেকে ৯৬ হাজার টাকা।
রিয়েল এস্টেট সংকটে ভুগছে চীন
চীনের রিয়েল এস্টেট খাতে দেখা দিয়েছে চরম সংকট। সহস্রাধিক আবাসনক্রেতা 'বন্ধকী ঋণ বর্জন' করা শুরু করেছে। সেই সঙ্গে চলমান ও বকেয়া আবাসন প্রকল্পের ঋণ পরিশোধ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন অনেকে। গত ২৩ জুলাই ইকোনোমিক টাইমের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে আসে। ওই প্রতিবেদনে জানা গেছে, চলতি বছরের ১৮ জুলাই পর্যন্ত দেশটির ৮০টি শহরে ও ২০০ প্রকল্পের আবাসন খাতের ক্রেতাগণ বন্ধকী ঋণ পরিশোধ করবে না বলে হুমকি দিয়েছে। এদিকে জিএফ সিকিউরিটিজ কোম্পানি ও ডয়েচ ব্যাংক এজির বিশ্লেষকদের দেয়া তথ্য মতে, চীনের উন্নয়নে মোট ২৯৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ২ ট্রিলিয়ন ইউয়ান (চীনা মুদ্রা) ব্যয় হয়েছে। কিন্তু এগুলো আদায় করা হয়নি। এক বছর আগে, চীনে যে পরিমাণ আবাসন বিক্রয় হত সে পরিমাণ বিক্রয় চলতি বছরে হয়নি। এক বছরে এই খাতে বিক্রি কমেছে ৬০ শতাংশ। রিয়েল এস্টেট খাতে এমন পতন চীনের ইতিহাসে আগে কখনো ঘটেনি। এর জন্য ব্যবসায়ীরা সরকারের 'জিরো কোভিড কেসেস' কৌশলকে দায়ী করছেন।
দুবাইয়ের আবাসন খাতে সর্বোচ্চ বিনিয়োগ বাংলাদেশিদের
দুবাই বিলাসবহুল শপিংমল, অতি-আধুনিক স্থাপত্য এবং প্রাণবন্ত নৈশকালীন আমোদ-প্রমোদের শহর হিসেবেই পরিচিত। নাগরিকদের বিনিয়োগের তথ্য দুবাইয়ের সরকারি নথি এবং সেই সূত্রে প্রকাশিত স্থানীয় সংবাদপত্রের র‍্যাঙ্কিং—এর বরাতে তথ্য হচ্ছে, করোনার সময়ে ১৮ মাসে দুবাইতে রিয়েল এস্টেট এবং আবাসন খাতে সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ করেছেন বাংলাদেশি ধনাঢ্যরা।